আইনজীবী সহকারী কাউন্সিল আইনের দাবিতে জেলায় জেলায় স্মারকলিপি

প্রতিবেদক : বার্তা কক্ষ
প্রকাশিত: ১১ জানুয়ারি, ২০১৮ ১১:২৬ পূর্বাহ্ণ

বাংলাদেশ আইনজীবী সহকারী সমিতি গতকাল বুধবার (১০ জানুয়ারি) একযোগে দেশের সকল জেলায় মানববন্ধন ও স্ব-স্ব জেলা প্রশাসক বরাবর স্মারকলিপি প্রদান কর্মসূচি পালন করে। কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে নিজ নিজ জেলায় স্মারকলিপি দিয়েছে জেলা আইনজীবী সহকারী সমিতি। আইনজীবী সহকারী কাউন্সিল আইনের দাবিতে জেলা প্রশাসক বরাবর এ স্মারকলিপি দেওয়া হয়।

ফেনী
ফেনী জেলা আইনজীবী সহকারীদের জন্য খসড়া প্রণীত ‘আইনজীবী সহকারী কাউন্সিল আইন’ পাসের দাবিতে ফেনী জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী ও আইনমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি পেশ করেন সমিতির জেলা নেতারা। বুধবার দুপুরে ফেনী জেলা প্রশাসক মনোজ কুমার রায়ের মাধ্যমে তাদের লিখিত দাবি সংবলিত স্মারকলিপি প্রদান করেন ফেনী জেলা আইনজীবী সহকারী সমিতির সভাপতি মোহাম্মদ নুরনবী ও সাধারণ সম্পাদক মো. জসিম উদ্দিনের নেতৃত্বে সংগঠনের নেতারা।

লক্ষ্মীপুর
আইনজীবী সহকারী কাউন্সিল আইনের দাবিতে লক্ষ্মীপুরে স্মারকলিপি দিয়েছে আইনজীবী সমিতি সহকারী সমিতি। লক্ষ্মীপুর জেলা প্রশাসক (ডিসি) অঞ্জন চন্দ্র পালের হাতে গতকাল বুধবার (১০ জানুয়ারি) সন্ধ্যায় এই স্মারকলিপি দেওয়া হয়।

স্মারকলিপি দেওয়ার সময় উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের সভাপতি জাফর আহমেদ, সাধারণ সম্পাদক আলতাফ হোসেন, সহ-সাধারণ সম্পাদক সিরাজ উল্যা, সংগঠনের নেতা শামছুল আলম, আমজাদ হোসেন, সমীর চন্দ্র নাথ, বাসু দেব অধিকারী ও মামুনুর রশিদসহ বেশ কয়েকজন সদস্য।

এ বিষয়ে লক্ষ্মীপুর জেলা আইনজীবী সহকারী সমিতির সভাপতি জাফর আহমেদ বলেন, ‘আমরা আদালত প্রাঙ্গণে দীর্ঘদিন ধরে সমাজকল্যাণে গণমুখী কাজ করছি। অথচ প্রতিটি পেশাজীবী মানুষের স্বতন্ত্র আইন থাকলেও আমাদের নেই। আমরা দ্রুত এ আইন পাসের দাবি জানাই। এজন্য স্মারকলিপি দিয়েছি।’

চাঁদপুর
দেশের আইনজীবী সহকারীদের জন্য খসড়া প্রণীত আইনজীবী সহকারী কাউন্সিল আইন পাসের দাবিতে চাঁদপুর জেলা আইনজীবী সহকারী সমিতির নেতৃবৃন্দ জেলা প্রশাসক মোঃ আব্দুস সবুর মন্ডল বরাবর স্মারকলিপি প্রদান করেছেন। কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে চাঁদপুর জেলা আইনজীবী সমিতির নেতৃবৃন্দ এ দিন সকাল ১১টায় জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সামনে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেন।

জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি মোঃ শাহজাহান হোসেন পাঠানের সভাপ্রধানে ও সাধারণ সম্পাদক মোঃ জামাল হোসেনের পরিচালনায় সংক্ষিপ্ত বক্তব্য রাখেন জেলা আইনজীবী সহকারী সমিতির সাবেক সভাপতি শাহআলম মজুমদার ও সাবেক সাধারণ সম্পাদক খাজা মাইনউদ্দিন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন আইনজীবী সহকারী সমিতির কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির সিনিয়র সহ-সভাপতি ও জেলা আইনজীবী সমিতির প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি আলহাজ্ব জাকারিয়া মিয়া, কেন্দ্রীয় সংসদের সহ-সম্পাদক কাইয়ুম খান, মিজানুর রহমান মৃধা, হারুনুর রশিদ, নিয়ন্ত্রণ পরিষদের সভাপতি রাজীব সাহা, সাধারণ সম্পাদক সেলিম মিয়া, সহ-সম্পাদক আনোয়ার হোসেন, মজিফুল ইসলাম (২), মোঃ মমিনসহ জেলা আইনজীবী সহকারী সমিতির সর্বস্তরের নেতৃবৃন্দ ও সদস্যগণ। মানববন্ধন কর্মসূচি শেষে মোঃ শাহজাহান হোসেন পাঠানের নেতৃত্বে নেতৃবৃন্দ জেলা প্রশাসক মোঃ আব্দুস সবুর মন্ডলের কাছে স্মারকলিপি প্রদান করেন। এ সময় জেলা প্রশাসক বলেন, আপনাদের এ স্মারকলিপি দ্রুততম সময়ের মধ্যে যথাযথ কর্তৃপক্ষের কাছে প্রেরণ করা হবে।

স্মারকলিপিতে নেতৃবৃন্দ উল্লেখ করেন, ১৯৮৬ সাল থেকে দেশের ৭৯টি বার সমিতির অধীনে লক্ষাধিক আইনজীবী সহকারী বাংলাদেশ আইনজীবী সহকারী সমিতির মাধ্যমে পরিচালিত হয়ে আসছে। আইনজীবী সহকারীগণ দেশের গুরুত্বপূর্ণ জনগোষ্ঠীর একটি অংশ। সুপ্রাচীনকাল থেকে তারা আদালত অঙ্গন ও সমাজকল্যাণে গণমুখী কাজ করে আসছেন। তাই তাদের স্বার্থ রক্ষায় আইনজীবী সহকারী কাউন্সিল আইন পাস করা খুবই প্রয়োজন। তারা উল্লেখ করেন, এ বিষয়ে তারা মহাসম্মেলন, জেলা সম্মেলন, সাংবাদিক সম্মেলন, বিভাগীয় সম্মেলন, সেমিনার ও মানববন্ধনের মাধ্যমে সকল মহল থেকে আইন প্রণয়নের দাবির প্রতি সমর্থন আদায় করেছেন। মন্ত্রী মহোদয় এ খসড়া প্রণীত আইনটি বিল আকারে প্রস্তুত করে সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতি ও বাংলাদেশ বার কাউন্সিলের মতামত আহ্বান করেন। এ বিষয়ে সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতি আইন পাসের পক্ষে লিখিত মতামত বাংলাদেশ বার কাউন্সিলে প্রেরণ করেন। এ আইনটি দ্রুত পাসের জন্য আইনজীবী সহকারী সমিতি সংশ্লিষ্টদের অনুরোধ জানান।

সুনামগঞ্জ
সুনামগঞ্জ জেলা আইনজীবী সহকারী সমিতি শাখা, আইনজীবী সহকারী কাউন্সিল আইন পাশের দাবিতে সংবাদ সম্মেলন করেছে।
বুধবার বেলা ১১ টায় শহরের আদালত পাড়াস্থ আইনজীবী সহকারী অফিসের সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত প্রেস বিফ্রিংয়ে সমিতির সভাপতি মো: আইয়ুব আলীর সভাপতিত্বে ও সাধারন সম্পাদক কাজল রঞ্জন দের পরিচালনায় বক্তব্য রাখেন আইনজীবী সহাকারী মো: জমির উদ্দিন আহমেদ, মো: রহমত আল আজাদ, মজমিল মিয়া, আবুল হোসেন,ফারুক আহমদ, আব্দুল মুকিত,আব্দুল মতিন, হাজী কমরু মিয়া ও শ্রীবাস রায় প্রমুখ।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন সমিতির সভাপতি মো: আইয়ুব আলী। বক্তারা অবিলম্বে আইনজীবী সহাকারী কাউন্সিল আইন পাশের দাবি জানান। দাবি বাস্তবায়ন না হলে আগামীতে মানববন্ধন, অনশনসহ কঠোর কর্মসুচি দেয়ার ঘোষণা করেন।
লিখিত বক্তব্যে উল্লেখ করেন পেশাগত স্বকীয়তা ও স্বীকৃতি স্বাধীনতার অন্যতম প্রধান অঙ্গিকার। স্বাধীনতা লাভের পর সমাজের প্রতিটি মানুষ নিজ নিজ মঞ্চ থেকে বৃটিশ সৃষ্ট কালাকানুন পরিবর্তনের দাবী জানালে স্বাধীনতা ও সংবিধানের অঙ্গীকার মোতাবেক প্রায় প্রতিটি পেশাজীবী মানুষের জন্য স্বতন্ত্র আইন প্রণয়ন করা হয়েছে। কিন্তু এদেশের আইনজীবী সহকারী সম্প্রদায়ের জন্য অদ্যাবধি পেশাগত কাজের বর্ণনা সহকারে কোন আইন প্রনয়ন করা হয়নি। দেশের সকল আইনজীবী সহকারীগণ দীর্ঘ ৩২ বছর যাবৎ একটি আইন প্রণয়নের দাবী জানালে, আইনজীবী মহাসম্মেলন ও বিভিন্ন আইনজীবী সমিতিসহ সর্ব মহল উক্ত দাবীর প্রতি সমর্থন জ্ঞাপন করেন।

উল্লেখ্য ১৯৮৭ সালে তৎকালীন এ্যাটর্নি জেনারেল এবং ১৯৯১ সালে আইন সংস্কার কমিশন থেকে একটি আইনের খসড়া প্রনয়ন করা হলেও তা আজও বাস্তবায়িত হয়নি। ১৯৯১ থেকে ১৯৯৬ সাল পর্যন্ত আইনজীবী সহকারীগণ দেশব্যাপী জেলা সম্মেলন, বিভাগীয় সম্মেলন সেমিনার, মহা-সম্মেলনের মাধ্যমে আইন প্রনয়নের জন্য দাবী জানালে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সমর্থন ও একান্ত ইচ্ছা থাকা সত্বেও তা আজও পাশ করা হয়নি। সংবাদ সম্মেলন থেকে তাদের দাবী মেনে নেয়া জন্য প্রধানমন্ত্রী ও আইনমন্ত্রীর নিকট জোর দাবী জানান।

পাবনা
বাংলাদেশ আইনজীবী সহকারী সমিতির উদ্যোগে সারাদেশে একযোগে আইনজীবী সহকারী “কাউন্সিল আইন” পাসের দাবিতে স্মারকলিপি প্রদান ও সাংবাদিক সম্মেলন করেছে আইনজীবী সহকারী সমিতি পাবনা জেলা শাখা। বুধবার বেলা ১ টায় পাবনা জেলা আইনজীবী সহকারী সমিতির উদ্যোগে পাবনা জেলা প্রশাসন কার্যালয়ে জেলা প্রশাসকের কাছে স্মারকলিপি প্রদান করা হয় এবং বেলা দেড়টায় সাংবাদিক সম্মেলন করা হয়।

পাবনা জেলা আইনজীবী সহকারী সমিতির সভাপতি মো. শহিদুল ইসলামের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক মো. রফিকুল ইসলামের পরিচালনায় সাংবাদিক সম্মেলনে বক্তব্য দেন জেলা আইনজীবী সহকারী সমিতির সহ-সভাপতি মো. জহির উদ্দিন, যুগ্ম সম্পাদক মীর ফজলুল করিম বাচ্চু, আমিরুল ইসলাম, অডিটর রফিকুল ইসলাম প্রমুখ।

সাংবাদিক সম্মেলনে বক্তারা বলেন, স্বাধীনতা লাভের পর সংবিধান অনুয়ায়ী প্রায় প্রতিটি পেশাজীবী শ্রেণীর জন্য স্বতন্ত্র আইন প্রণীত হয়েছে। কিন্তু পরিতাপের বিষয়, আমাদের আইনজীবী সহকারীদের সুনিদিষ্ট কোনো আইন পাশ হয়নি। অবিলম্বে আইনজীবী সহকারীদের জন্য কাউন্সিল আইন পাশ করা হোক।

এ সময় জেলা আইনজীবী সহকারী সমিতির সদস্য মো. ইমরান হোসেন, মো. ইকবাল হোসেন, মো. শমসের আলী, মো. সাইফুল ইসলাম, কাজী আব্দুদ দায়েন দুলাল, জাফরুল ইসলাম রতন, দেলোয়ার হোসেনসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

জেলা প্রতিনিধি/ল’ইয়ার্স ক্লাব বাংলাদেশ ডটকম