বিএনপি-জামাতকে রাজনৈতিক নয় ‘পাকিস্তানি এজেন্ট’ জোট নামে সম্বোধন করা উচিৎ

প্রতিবেদক : বার্তা কক্ষ
প্রকাশিত: ৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ৭:২৪ অপরাহ্ণ
ব্যারিস্টার তুরিন আফরোজ

মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত সালাউদ্দীন কাদের চৌধুরীর উদ্দেশ্যে শ্রদ্ধা জানিয়ে শোক প্রস্তাব এনেছে বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটি। এই বিষয়ে প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করতে গিয়ে আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের প্রসিকিউটর ব্যারিস্টার তুরিন আফরোজ বলেন, ‘বিএনপি-জামাত এবং পাকিস্তান একই বৃন্তের ৩টি ফুল- আদর্শগত ভাবে এদের মধ্যে কোন পার্থক্য নেই। মৌলিক ভাবে এরা একে অপরের পরিপূরক। একটু লক্ষ্য করলে দেখা যাবে যুদ্ধাপরাধীরদের বিষয়ে সর্ব প্রথম শোক প্রকাশ করে জামাত। এর পরে পাকিস্তান তার পার্লামেন্টে শোক প্রস্তাব আনে। সর্বশেষে, বিএনপি নামক দলটিও তাদের কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটি সভায় একজন মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে মৃত্যুদণ্ড প্রাপ্ত আসামী তথা সালাউদ্দীন কাদের চৌধুরীর উদ্দেশ্যে শ্রদ্ধা জানিয়ে শোক প্রস্তাব এনেছে। এছাড়াও বিএনপির শোক প্রস্তাবে আব্দুর রহমান বিশ্বাস নামের আরও একজন রাজাকারের নাম ছিল। তাদের এই মায়া কান্না প্রমান করে তারা এখন কোন রাজনৈতিক দল নয় বরং তাদের লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য হল এদেশে পাকিস্তানের এজেন্ডা বাস্তবায়ন করা।

তিনি আরো বলেন, ‘বিএনপির এই রাজাকার ও মানবতাবিরোধীদের পক্ষে মায়া কান্নার কারনে তাদের কোন নৈতিক অধিকার নেই স্বাধীন দেশে রাজনীতি করার। তাদের এরূপ কর্মকাণ্ড শুধু মুক্তিযুদ্ধের চেতনার প্রতি অবমাননা নয় বরং ৩০ লাখ শহীদ ও ৫ লাখ নির্যাতিতা মা-বোনের দীর্ঘশ্বাসের প্রতি চরম অপমান। তাই সময় এসেছে বিএনপি-জামাত জোটকে রাজনৈতিক জোট না বলে “পাকিস্থানি এজেন্ট” দের জোট নামে সম্বোধন করা।’