ঢাকা , ২৬শে এপ্রিল ২০১৮ ইং , ১৩ই বৈশাখ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
প্রচ্ছদ » আদালত প্রাঙ্গণ » নেপালে বিমান দূর্ঘটনায় নিহতদের স্মরণে চট্টগ্রামে আইনজীবীদের শোকসভা

নেপালে বিমান দূর্ঘটনায় নিহতদের স্মরণে চট্টগ্রামে আইনজীবীদের শোকসভা

চট্টগ্রাম জেলা আইনজীবী সমিতির উদ্যোগে নেপালে সাম্প্রতিক কালের ভয়াবহ বিমান দূর্ঘটনায় নিহত ব্যক্তিদের স্মরণে এক শোকসভা করেছে আইনজীবীরা।

আজ বুধবার (১৪ মার্চ) সমিতির আইনজীবী অডিটরিয়ামে সহসাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ ইয়াছিন খোকনের সঞ্চালনায় এ শোক সভা অনুষ্ঠিত হয়।

সমিতির সভাপতি শেখ ইফতেখার সাইমুল চৌধুরী সভাপত্বিতে সভার প্রারম্ভে নিহতদের স্মরণে দাড়িঁয়ে ১মিনিট নীরবতা পালন করা হয়।

সভায় বক্তাগণ বলেন- বাংলাদেশের একটি বিমান নেপালে দূর্ঘটনার শিকার হয়ে অনেক প্রানহানি হয়েছে এবং অনেকেই মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ে বেঁচে আছেন। এই দূর্ঘটনার জন্য জাতি কোনভাবেই প্রস্তুত ছিল না। আমরা দূর্ঘটনার কারন উদঘাটন করে দোষীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবী করি এবং দূর্ঘটনার কারণ চিহ্নিত করে প্রতিকারের ব্যবস্থা নেওয়ার দাবী জানাই।

সভাপতির বক্তব্য শেখ ইফতেখার সাইমুল চৌধুরী বলেন- মৃত্যু অবধারিত এই নিশ্চিত সত্যকে মেনে নিয়ে আমরা আমাদের জীবন পরিচালনা করি। নেপালে বিমান দূর্ঘটনা আমাদের জন্য একটি বড় ধরনের ধাক্কা। আকাশপথে সরকারী বিমানের পাশাপাশি বেসরকারী সংস্থা সমূহ এগিয়ে এসে সেবা প্রদান করছে। এই দূর্ঘটনা আমাদের ধাবমান আকাশ পথের সেবাকে কিছুটা বাধাগ্রস্থ করেছে। দূর্ঘটনার কারন নিবারন করে এবং এই থেকে শিক্ষা নিয়ে আমাদেরকে সামনের দিকে আঘাতে হবে থেমে গেলে চলবে না। সমগ্র জাতিকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে সকল দূর্যোগ মোকাবেলা করতে হবে।

শোক সভায় বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ বার কাউন্সিলের সম্মানিত সদস্য মো. ইব্রাহীম হোসেন চৌধুরী বাবুল, সমিতির সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ নাজিম উদ্দিন চৌধুরী, সিনিয়র আইনজীবী আবদুস সাত্তার, আবদুল কাদের, মো. আবু তাহের, কেশব চন্দ্র নাথ, রফিকুল আলম, এছাড়া উপস্থিত ছিলেন কার্যনির্বাহী পরিষদের অর্থ সম্পাদক মো. শফিউল হক চৌধুরী (সেলিম), পাঠাগার সম্পাদক মো. নুরুল করিম (এরফান), সাংস্কৃতিক ও ক্রীড়া সম্পাদক হাসনা হেনা, তথ্য ও প্রযুক্তি সম্পাদক মো. রাশেদুল আলম (রাশেদ), নির্বাহী সদস্য যথাক্রমে মো. লোকমান, সেলিনা আকতার, মোহাম্মদ ইয়াছিন, মুহাম্মদ আকিব চৌধুরী, এইচ.এস. সোহরাওয়ার্র্দী, মোহাম্মদ এহছানুল হক, মো. এনামুল হক, ইয়াসিন মাহমুদ (তানজিল), মো. হাসান কায়েসসহ বিপুল সংখ্যক আইনজীবী।

সভায় বক্তারা বিধ্বস্ত বিমানটির পাইলট বাংলাদেশী বীর কন্যা প্রিথুলা রশিদ নিজের জীবনের বিনিময়ে বিমানটির ১০ নেপালি যাত্রীকে বাঁচিয়ে মানবসেবায় যে গুরুত্বপূর্ণ ভ’মিকা রেখেছেন তাঁর বীরত্বের জন্য তাকে রাষ্ট্রীয় খেতাব প্রদানের জন্য দাবী জানানো হয়। নিহতদের স্মরণে কোরআন তেলাওয়াত ও মোনাজাত করেন সমিতির সাবেক নির্বাহী সদস্য মো. ফখরুল ইসলাম ও মো. হাবিবুর রহমান।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তি