স্ত্রীর অসম্মতিতে সহবাস ধর্ষণ নয়: গুজরাট হাইকোর্ট

প্রতিবেদক : বার্তা কক্ষ
প্রকাশিত: ৪ এপ্রিল, ২০১৮ ৫:৪৪ অপরাহ্ণ
গুজরাট হাইকোর্ট

স্ত্রীর বয়স যদি ১৮ বছরের বেশি হয়, তাহলে তাঁর সঙ্গে জোর করে দৈহিক মিলন করলে তা ধর্ষণ বলে বিবেচিত হবে না বলে রায় দিয়েছেন ভারতের একটি আদালত। গত সোমবার(২ এপ্রিল) এমনই এক রায় দেন ভারতের গুজরাট রাজ্যের হাইকোর্ট।

টাইমস অব ইন্ডিয়ার এক খবরে জানা গেছে, বিচারপতি জে পি পার্দিওয়ালা রায়ে জানিয়েছেন, স্ত্রীর বয়স যদি ১৮ বছরের ওপরে হয়, তাহলে স্ত্রীর অসম্মতিতে স্বামী সহবাস করলে তা ধর্ষণ হিসেবে গণ্য হবে না। ফলে এ ক্ষেত্রে স্ত্রী তাঁর স্বামীর বিরুদ্ধে ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩৭৫ ধারায় অভিযোগ জানাতে পারবেন না।

তবে স্বামী ওরাল সেক্স বা অস্বাভাবিক যৌনতায় বাধ্য করলে তা নিষ্ঠুরতার শামিল বলে গণ্য হবে। সে ক্ষেত্রে স্ত্রী ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩৭৭ ধারায় স্বামীর বিরুদ্ধে অভিযোগ জানাতে পারবেন।

পার্দিওয়ালা বলেন, জোর করে যৌন সম্পর্ক স্থাপন করতে চাইলে সম্মানহানির অভিযোগ জানিয়ে ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩৫৪ ধারায় মামলা দায়ের করতে পারেন নারীরা।

এই বিচারপতি দুঃখ প্রকাশ করে বলেন, ম্যারিটাল রেপ বা স্ত্রীকে ধর্ষণ নিয়ে সারা বিশ্বে অনেক আইন থাকলেও ভারতে এমন কোনো আইন নেই। ভারতে স্ত্রীকে জোর করে স্বামী ধর্ষণ করলেও তা শাস্তিযোগ্য অপরাধের আওতায় পড়ে না। ফলে নিজের অধিকারের মতো নারীরা তাঁদের শারীরিক সুরক্ষা নিতে পারেন। এ ব্যাপারে ভারতের আইনসভাকে চিন্তাভাবনা করার পরামর্শও দিয়েছেন এই বিচারপতি।

এর আগে গুজরাটের সবরকাঠা জেলার ইদার থানায় এক নারী চিকিৎসক তাঁর চিকিৎসক স্বামীর বিরুদ্ধে ধর্ষণ, অস্বাভাবিক উপায়ে যৌনতা এবং পণ চাওয়ার অভিযোগ দায়ের করেছিলেন। স্ত্রীর করা ধর্ষণের অভিযোগকে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে পাল্টা অভিযোগও করেন ওই চিকিৎসক।

সেই মামলাতেই বিচারপতি পার্দিওয়ালা স্ত্রীর ধর্ষণের অভিযোগ খারিজ করে দিলেও পণ চাওয়ার অভিযোগে স্বামীর বিরুদ্ধে তদন্তের নির্দেশ দেন।