ঢাকা , ২৭শে মে ২০১৮ ইং , ১৩ই জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
প্রচ্ছদ » আদালত প্রাঙ্গণ » ‘পরাজয়ের ভয়ে বিভ্রান্তি সৃষ্টির পাঁয়তারা করছে বিএনপির আইনজীবীরা’

‘পরাজয়ের ভয়ে বিভ্রান্তি সৃষ্টির পাঁয়তারা করছে বিএনপির আইনজীবীরা’

আব্দুল বাসেত মজুমদার

 

বাংলাদেশ বার কাউন্সিল নির্বাচনে নিশ্চিত পরাজয়ের আশঙ্কা থেকেই বিএনপিপন্থী আইনজীবীরা সংবাদ সম্মেলন করেছেন বলে অভিযোগ করেছেন আওয়ামীপন্থী আইনজীবীরা।

সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতি ভবনের উত্তর হলে পাল্টা সংবাদ সম্মেলনে শনিবার বিকেলে এ কথা বলেন আওয়ামী সমর্থিত সাদা প্যানেলের প্রার্থী আব্দুল বাসেত মজুমদার।

এর আগে শনিবার সকালে বিএনপিপন্থী আইনজীবী প্যানেলের প্রার্থী এ জে মোহাম্মদ আলী অভিযোগ করে বলেন, গতবার রেজাল্ট শিট ঠিকমতো দেয়া হয়নি। এ কারণে বার কাউন্সিলের ইতিহাসে প্রথমবারের মতো বেসরকারি ঘোষিত ফলাফল পরে পরিবর্তিত হয়। এটা বার কাউন্সিলের ইতিহাসে নজিরবিহীন ঘটনা। ঝালকাঠি জেলায় ভোটারদের ভয়ভীতি দেখানো হচ্ছে বলেও অভিযোগ করেন তিনি।

তার এ বক্তব্যের প্রতিবাদে আইনজীবী আব্দুল বাসেত মজুমদার বলেন, সারা দেশের আইনজীবীরা তাদের (বিএনপির নীল প্যানেল) সমর্থন করছে না। এ কারণে পরাজয়ের ভয়ে অমূলক কথা বলে একটা বিভ্রান্তি সৃষ্টির পাঁয়তারা করছেন তারা। তিনি বলেন, আমি মনে করি সচেতন আইনজীবীরা এতে কান দেবে না।

বার কাউন্সিলের বর্তমান এ ভাইস চেয়ারম্যান বলেন, এবারের নির্বাচনে আমরা কিছু নিয়ম করেছি। ছবিসহ ভোটার তালিকা করা হয়েছে। ভোটারদের ভোটের সময় জাতীয় পরিচয়পত্র অথবা পাসপোর্টের ফটোকপি নিয়ে আসতে বলা হয়েছে। যার কারণে জাল ভোটের কোনো সুযোগ নেই।

নির্বাচনে ফলাফল মেনে নেয়ার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, ফলাফল যা হোক আমরাও মেনে নেব।

ভোট গণনা শেষে সঙ্গে সঙ্গে ফলাফল শিটের একটি কপি পেতে তারা যে দাবি করেছেন তার জবাবে আব্দুল বাসেত মজুমদার বলেন, বার কাউন্সিল নির্বাচনে আমাদের রিটার্নিং কর্মকর্তা একজন জেলা জজ। তিনি যা ভালো মনে করেন তাই করবেন। এতে আমাদের কোনো আপত্তি নেই। আইন অনুযায়ী যেভাবে ফলাফল দেয়ার বিধান রয়েছে সে ভাবেই হবে। আমরা সেটাই মেনে নেব।

তিনি বলেন, ঝালকাঠি জেলায় ভোটারদের ভয়ভীতি দেখানো হচ্ছে বলে তারা (বিএনপিপন্থী আইনজীবীরা) যে অভিযোগ করেছেন তা সম্পূর্ণ অবান্তর। তাদের ভয়ভীতি দেখানোর কোনো প্রশ্নই ওঠে না। বার কাউন্সিলের নির্বাচন অত্যন্ত স্বচ্ছ হয়। এখানে ভয়ভীতি দেখানোর কোনো সুযোগই নেই।

আওয়ামী সমর্থিত সাদা প্যানেলের সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের উপদেষ্টামণ্ডলীর সদস্য ইউসুফ হোসেন হুমায়ুন, আওয়ামী লীগের আইন সম্পাদক শ ম রেজাউল করিম, এএম আমিন উদ্দিন, নজিবুল্লাহ হিরু, জেড আইন খান পান্না, মো. মোখলেসুর রহমান বাদল ও আজহারুল্লাহ ভূঁইয়াসহ শতাধিক আইনজীবী।

উল্লেখ্য, আইনজীবীদের সর্বোচ্চ সংস্থা বাংলাদেশ বার কাউন্সিলের নির্বাচন আগামীকাল সোমবার (১৪ মে) অনুষ্ঠিত হবে। এ দিন সকাল ১০টা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।

সুপ্রিমকোর্ট আইনজীবী সমিতির ভবনে স্থাপিত ভোটকেন্দ্র, দেশের জেলা সদরের সব দেওয়ানি আদালত প্রাঙ্গণে স্থাপিত ভোটকেন্দ্র এবং বাজিতপুরসহ দেশের মোট ১২টি উপজেলা পর্যায়ের দেওয়ানি আদালত প্রাঙ্গণে স্থাপিত ভোটকেন্দ্রে এই ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।

এবারের নির্বাচনে ৪৩ হাজার ৭১৩ জন আইনজীবী তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে পারবেন। ভোট দেয়ার সময় প্রত্যেক আইনজীবীকে তাদের জাতীয় পরিচয়পত্র অথবা পাসপোর্ট নিয়ে আসতে হবে।এবারের নির্বাচনে মূলত আওয়ামী লীগপন্থী ও বিএনপিপন্থী আইনজীবীদের মধ্যে প্রতিদ্বন্দ্বিতা হবে।