ভোক্তা আইনে অভিযোগ প্রমাণ করলেই পাবেন পুরষ্কার

প্রতিবেদক : বার্তা কক্ষ
প্রকাশিত: ৭ জুলাই, ২০১৮ ৪:২৬ অপরাহ্ণ
মোঃ সাজ্জাদ হোসেন

মো: সাজ্জাদ হোসেন: 

ভোক্তা বলতে সাধারনত যে বা যিনি কোন পণ্য ভোগ করার জন্য ক্রয় করে থাকেন তাকে বোঝায়। এক কথায় বলতে গেলে পন্যের উপভোগকারী। কিন্তু উপভোগের এই পণ্য সামগ্রীগুলো যদি হয় ভেজাল, মেয়াদউত্তীর্ণ, নকল তখন তা ব্যবহার অনুপযোগী হয়ে পড়ে। আবার অনেক সময় দেখা যায় পণ্যের নির্ধারিত মূল্যের থেকে বিক্রেতা বেশি মূল্য রাখছে তখন ভোক্তা হিসাবে আপনার করনীয় কি হবে? এমন সব অহেতুক এবং প্রতারণার বিষয় থেকে ভোক্তা বা ক্রেতাদের সংরক্ষণ করার জন্য প্রনয়ণ করা হয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইন ২০০৯। এ আইনের মাধ্যমে ভোক্তা বা ক্রেতারা সহজেই যেকোন বিক্রেতার বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ পারেন। আর অভিযোগ প্রমাণ করতে পারলে জরিমানার ২৫ শতাংশ পুরষ্কার পাবেন।

মনে করুন সারা সপ্তাহের কর্ম ব্যস্ততার পর ছুটির দিন পরিবারের সবাইকে নিয়ে বাইরে কোথাও ঘুরতে গেলেন। ফেরার পথে ভাবলেন অনেকদিন পরিবারের সবাইকে নিয়ে কোথাও খাওয়া হয়না। যেই ভাবা সেই কাজ শেষ করার পর বিল দিতে গিয়ে মাথায় আকাশ ভেঙ্গে পড়ার মত অবস্থা হল ।দেখলেন প্রায় প্রতিটা পণ্যই তার নির্ধারিত পণ্যের দ্বিগুন দাম ধরে বিল করেছে এবং দোকানে ঝোলানো মূল্য তালিকা অনুযায়ী কোন পণ্যের মূল্য রাখা হয় নাই। যখন বিক্রেতার সাথে খুব ঝগড়াঝাটি করেও দেখলেন কোন লাভ হচ্ছেনা। এমন অবস্থায় আপনি কি করবেন?

অভিযোগ দায়েরের পদ্ধতি

www.dncrp.gov.bd এই ওয়েবসাইট থেকে অভিযোগ ফর্ম ডাউনলোড করতে হবে। অভিযোগ ফর্মটি হাতে এমনভাবে লিখে পূরন করুন যাতে যাবতীয় সবকিছু স্পষ্ট বোঝা যায়। এরপর পূরণকৃত ফর্মটি স্ক্যান করে অথবা ছবি তুলে ই-মেইল করুন: nccc@dncrp.gov.bd এই ঠিকানায়।

অথবা পূরণকৃত অভিযোগপত্রটি ০২৮১৮৯৪২৫ এই নাম্বারে ফ্যাক্সও করা যাবে।

অভিযোগের সাথে কিছু প্রমাণপত্র জমা দিতে হবে। আপনি যে দোকান কিংবা রেস্টুরেন্টের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করতে চান সেখানকার খাবারের বিল অথবা সেবার জন্য ক্যাশমেমো স্ক্যান করে, আর যদি দৃশ্যমান জিনিস হয় তাহলে ছবি তুলে অভিযোগপত্রের সাথে ই-মেইল করতে হবে।

অথবা, সরাসরি ডাকযোগে পাঠাতে পারবেন জাতীয় ভোক্তা অভিযোগ কেন্দ্র, টিসিবি ভবন (৯ম তলা), কারওয়ান বাজার, ঢাকা-১২১৫ ঠিকানায়।

অথবা, আপনার জেলার জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালকের স্থানীয় অফিসেও অভিযোগ করতে পারবেন একই পদ্ধতিতে।

কত দিনের মধ্যে অভিযোগ করবেন

অবশ্যই ঘটনা ঘটার এক মাসের মধ্যে প্রমাণসহ অভিযোগটি করতে হবে। অভিযোগপ্রাপ্তির ১০ থেকে ১৫ দিনের মধ্যে অধিদপ্তর থেকে ফোনে বা ই-মেইলে অভিযোগকারী এবং অভিযুক্তকে শুনানীর জন্য ডাকা হবে। শুনানীর দিন অভিযোগকারীকে অভিযোগের সাথে জমাকৃত প্রমাণপত্র নিয়ে যেতে হবে। অভিযোগের সত্যতা পেলে এবং অভিযোগটি প্রমাণ হলে জরিমানার টাকার ২৫ শতাংশ সরাসরি ক্ষতিগ্রস্থ ভোক্তার হাতে তুলে দেয়া হবে। এছাড়া জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের ০২-৮১৮৯৪১১, ০১৭৭৭৭৫৩৬৬৮ নম্বরে ফোন করেও এ সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পারবেন।

লেখক: শিক্ষানবিশ আইনজীবী