ঢাকা , ২১শে সেপ্টেম্বর ২০১৮ ইং , ৬ই আশ্বিন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
প্রচ্ছদ » নারী ও শিশু » ব্যারিস্টার রাশনা ইমাম ‘এশিয়া ইয়ং লিডার’ মনোনীত

ব্যারিস্টার রাশনা ইমাম ‘এশিয়া ইয়ং লিডার’ মনোনীত

জনস্বার্থমূলক কর্মকাণ্ডে সম্পৃক্ততা এবং আইন পেশায় দক্ষতার স্বীকৃতিস্বরূপ সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ব্যারিস্টার রাশনা ইমাম ‘এশিয়া ২১ ইয়ং লিডার-২০১৮’ মনোনীত হয়েছেন। এশিয়ান সোসাইটি এবার নতুন প্রজন্মনের নেতৃত্বদানকারী বিভিন্ন সেক্টরের মোট ৩১ জনকে ইয়ং লিডার হিসেবে নির্বাচিত করেছেন।

এশিয়া সোসাইটির ওয়েবসাইটে শনিবার(৮ সেপ্টেম্বর) এ তথ্য প্রকাশ করা হয়েছে। রাশনা ইমাম দেশের গুরুত্বপূর্ণ ল ফার্ম ‘আকতার ইমাম অ্যান্ড অ্যাসোসিয়েট’ এর ম্যানেজিং পার্টনার।

ব্যারিস্টার রাশনা ইমামের বাবা ব্যারিস্টার আখতার ইমাম সুপ্রিম কোর্টের জ্যেষ্ঠ আইনজীবী এবং রাজনীতিবিদ স্বামী ববি হাজ্জাজ। অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় থেকে উচ্চশিক্ষা শেষে রাশনা ইমাম বিশ্বের সবচেয়ে বড় ল ফার্ম ‘বেকার অ্যান্ড মেকাঞ্জি’ এর লন্ডন অফিসে কাজ করেন। শুধু তাই নয়,বিশ্বখ্যাত মিত্তাল এবং শিন্ডার ইলেট্রিক কোম্পানিকে প্রতিনিধিত্ব করার অভিজ্ঞতা রয়েছে তার।

বাংলাদেশের বিভিন্ন স্থানীয় শিল্পগোষ্ঠী এবং বহুজাতিক কোম্পানিকে আইনি পরামর্শ এবং সেবা দিচ্ছেন রাশনা ইমাম। চেম্বারস অ্যান্ড পার্টনারস, এশিয়া প্যাসিফিক-২০১৮ এর একজন আইনজীবী তিনি। ‘এশিয়া ২১ ইয়ং লিডারস-২০১৮ এর তালিকায় মঙ্গোলিয়ার উপ-অর্থমন্ত্রী বুলগানতোয়া কুরিলবাটার, দৃষ্টি প্রতিবন্ধীদের জন্য বিশ্বের প্রথম কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তাসম্পন্ন ব্যক্তিগত সহায়ক ডিভাইস নিয়ে কাজ করা ভারতের রূপম শর্মা এবং অস্ট্রেলিয়ার সর্বকনিষ্ঠ সংসদ সদস্য টিমোথি ওয়াটস।

প্রসঙ্গত, এশিয়া ২১ ইয়ং লিডারস এশিয়া-প্যাসিফিক অঞ্চলের তরুণ নেতাদের সবচেয়ে শক্তিশালী প্লাটফরম। যাদের ৪০টি দেশে প্রায় ৯০০ অ্যালামনাই রয়েছে। এশিয়া সোসাইটির উদ্যোগে ১৯৫৬ সালে জন ডি রকফেলার তৃতীয় এটি প্রতিষ্ঠা করেন। অরাজনৈতিক, অলাভজনক প্রতিষ্ঠান হিসেবে এর ল্য এশিয়া এবং আমেরিকার সাধারণ জনগণ, নেতা এবং প্রতিষ্ঠানসমূহের মধ্যে পারষ্পরিক সহযোগিতা এবং বোঝাপড়ার সম্পর্ককে মজবুত করা।