কানাডার আদালতে হিজাব পড়তে পারবেন নারীরা

প্রতিবেদক : বার্তা কক্ষ
প্রকাশিত: ১৫ অক্টোবর, ২০১৮ ১১:৩০ পূর্বাহ্ণ

কানাডার কুইবেক কাউন্টি কোর্ট অব আপিল গত ৪ অক্টোবর একটি রায় দেয় যে- আদালতে আসা কোনো নারী যদি হিজাবধারী হয়, তাহলে বিচারক তার কথা শুনতে না চাওয়া উচিত হবে না। বরং হিজাব পরিধান করা কানাডিয়ান মুসলিম নারীদের নাগরিক ও ধর্মীয় অধিকার।

এ দিন কুইবেকের সুপ্রিম কোর্ট সার্বভৌম সিদ্ধান্তে পৌঁছেছে যে, নাগরিকরা তাদের ধর্মের দাবি অনুযায়ী যে ধরনের ইচ্ছা পোশাক পরিধান করতে পারবেন। তবে শর্ত হলো, তার ধর্মীয় বিশ্বাস সম্পূর্ণ সঠিক হতে হবে। কারো সঙ্গে সাংবিধানিক দ্বন্দ্বে না জড়ানো পর্যন্ত কানাডিয়ান নাগরিকদের এ সুযোগ থাকবে।

২০১৫ সালে মন্ট্রিলের কানাডিয়ান মুসলিম নারী রানিয়াতুল আলুলকে হিজাব পরার কারণে একটি আদালতের শুনানি থেকে বহিষ্কার করা হয়েছিল। কুইবেক কোর্টের বিচারক ইলিয়ানা ম্যারেনগো সেসময় আদালতের প্রবিধান অনুযায়ী মুসলিম নারীদের একটি টুপি বা সানগ্লাস পরা ‘যথোপযুক্ত ড্রেস’ বলে আখ্যায়িত করেছিলেন এবং তার এ সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন করেছিলেন।

আদালতের আপিলের তিন বিচারক সর্বসম্মতিক্রমে বলেছিলেন যে, তৎকালীন বিচারক ‘প্রভাবশালী এবং পরম নীতির উপর ভিত্তি করে ধর্মীয় অভিব্যক্তি প্রকাশ’ শীর্ষক অধিকারকে বিবেচনা করেননি। ফলে কানাডার মতো ধর্মীয় সস্প্রীতিপূর্ণ ধর্মনিরপেক্ষ রাষ্ট্রের নীতি ভুলভাবে কুইবেকের আদালতে বাস্তবায়ন হয়ে গিয়েছিল। তাই আগের রায় উঠিয়ে নেওয়া হয়েছে এবং এখন থেকে নতুন রায়টি কার্যকর হবে।