রাজধানীর বহুতল ভবনের অগ্নিনির্বাপণ অবস্থা জানতে চেয়ে রিট

প্রতিবেদক : বার্তা কক্ষ
প্রকাশিত: ৩১ মার্চ, ২০১৯ ১২:৫৮ অপরাহ্ণ
উচ্চ আদালত

ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের আট তলা ঊর্ধ্ব সব সরকারি-বেসরকারি ভবনে প্রয়োজনীয় অগ্নিনির্বাপণ যন্ত্র রয়েছে কিনা তার তথ্য জানার নির্দেশনা চেয়ে হাইকোর্টে রিট দায়ের করা হয়েছে। এছাড়া রিটে গুলশান এলাকায় একটি ফায়ার সার্ভিস স্টেশন স্থাপনের নির্দেশনা চাওয়া হয়েছে।

আজ রোববার (৩১ মার্চ) হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় সংগঠন- গুলশান সোসাইটির সেক্রেটারি জেনারেল ব্যারিস্টার শুল্কা সারোয়াত সিরাজ এ রিট দায়ের করেন। আগামীকাল সোমবার (১ এপ্রিল) বিচারপতি সৈয়দ রেফাত আহমেদ ও বিচারপতি মো. ইকবাল কবিরের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চে রিট আবেদনটির ওপর শুনানি হতে পারে।

এ বিষয়ে শুল্কা সারোয়াত সিরাজ গণমাধ্যমকে বলেন, ‘রাজধানীর গুলশানসহ বিভিন্ন এলাকায় প্রয়োজনের তুলনায় কম ফায়ার স্টেশন রয়েছে। এছাড়া তাদের জনবল ও অগ্নিনির্বাপণের যন্ত্রপাতি অপ্রতুল। তাই রিট আবেদনে ফায়ার ফাইটারদের আরও বেশি সংখ্যক যন্ত্রাংশ সরবরাহ এবং উন্নত প্রশিক্ষণ দেওয়ার নির্দেশনা চেয়েছি। পাশাপাশি রিটে রাজধানীসহ গাজীপুর এলাকাতেও অগ্নিনির্বাপণের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশনা চাওয়া হয়েছে।’

উল্লেখ্য, বৃহস্পতিবার (২৮ মার্চ) দুপুর ১২টা ৫৫ মিনিটে বনানীতে ২৩ তলা এফ আর টাওয়ারে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। ফায়ার সার্ভিসের ২৫টি ইউনিট আগুন নেভানো ও হতাহতদের উদ্ধারে কাজ করে। পাশাপাশি সেনাবাহিনী, বিমানবাহিনী, নৌবাহিনী, পুলিশ, র‌্যাব, রেড ক্রিসেন্টসহ ফায়ার সার্ভিসের প্রশিক্ষিত অনেক স্বেচ্ছাসেবী অগ্নিনির্বাপণ ও উদ্ধার কাজে অংশ নেয়। প্রায় সাড়ে ছয় ঘণ্টা চেষ্টার পর রাত সাতটায় আগুন নেভানো সম্ভব হয়। ওই ঘটনায় এখন পর্যন্ত ২৬ জন মারা গেছেন।