১২ শিশুকে ধর্ষণ: মাদ্রাসার অধ্যক্ষ ৫ দিনের রিমান্ডে

প্রতিবেদক : বার্তা কক্ষ
প্রকাশিত: ৭ জুলাই, ২০১৯ ৩:৩৩ অপরাহ্ণ
বাইতুল হুদা ক্যাডেট মাদ্রাসার প্রধান শিক্ষক আল-আমিন (মাঝে)

১২ শিশু শিক্ষার্থীকে ধর্ষণ ও যৌন নির্যাতনের অভিযোগে নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লার মাহমুদপুর এলাকার বাইতুল হুদা ক্যাডেট মাদ্রাসার প্রধান শিক্ষক আল-আমিনকে দুটি মামলায় পাঁচ দিনের রিমান্ড দিয়েছেন আদালত।

আজ রোববার (৭ জুলাই) বেলা ১২টার দিকে নারায়ণগঞ্জ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট কাউসার আলমের আদালত এ রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

তার বিরুদ্ধে করা মামলা দুটি হলো ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন এবং নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন।

এর আগে, গত ৪ জুলাই আল- আমিনকে গ্রেফতার করা হয়। এ সময় মাদ্রাসা থেকে একটি ডেক্সটপ ও তার মোবাইল ফোন জব্দ করা হয়। সেখান থেকে পর্নোগ্রাফি ছবিতে বেশ কয়েক জন ছাত্রীর মাথা কেটে সংযুক্ত করা একাধিক ছবি জব্দ করা হয়েছে। এ ঘটনায় র‌্যাবের ডিএডি কামাল হোসেন বাদী হয়ে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে এবং নির্যাতনের শিকার এক শিশুর অভিভাবক বাদী হয়ে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে ফতুল্লা থানায় মাওলানা আল- আমিনকে আসামি করে পৃথক দুটি মামলা দায়ের করেন।

ফতুল্লা থানা পুলিশ ৫ জুলাই (শুক্রবার) মাওলানা আল আমিনকে দুটি মামলায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ১০ দিনের রিমান্ড আবেদন করলে আদালত রবিবার শুনানির দিন ধার্য করেন। আজ শুনানি শেষে আদালত আসামি আল -আমিনের পাঁচ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

উল্লেখ্য, গত ২৭ জুন বাইতুল হুদা ক্যাডেট মাদ্রাসা থেকে মাত্র ১ হাজার গজ দূরে সিদ্ধিরগঞ্জের কান্দাপাড়া অক্সফোড হাই স্কুলের সহকারী শিক্ষক আরিফুল ইসলামকে ২০ ছাত্রীকে ধর্ষণ ও যৌন নির্যাতের অভিযোগে গ্রেফতার করার পর সে আদালতে দোষ স্বীকার করে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দেয়।