অবকাশ শেষে সুপ্রিম কোর্টে নিয়মিত বিচারিক কার্যক্রম শুরু

প্রতিবেদক : বার্তা কক্ষ
প্রকাশিত: ১৮ আগস্ট, ২০১৯ ১০:৩৪ পূর্বাহ্ণ
উচ্চ আদালত

অবকাশকালীন ছুটি শেষে আজ রোববার (১৮ আগস্ট) সুপ্রিম কোর্ট খুলেছে। অবকাশ শেষে আজ থেকে দেশের সর্বোচ্চ আদালতে ফের নিয়মিত বিচারিক কার্যক্রম শুরু হয়েছে।

গত ২ আগস্ট থেকে ১৭ আগস্ট পর্যন্ত সাপ্তাহিক ছুটি, ঈদুল আজহার সরকার ঘোষিত অন্যান্য ছুটি এবং কোর্টে অবকাশের কারণে সুপ্রিম কোর্টের হাইকোর্ট ও আপিল বিভাগের নিয়মিত বিচারিক কার্যক্রম বন্ধ ছিল। তবে এ সময় নিয়মিত বিচারিক কার্যক্রম বন্ধ থাকলেও আপিল ও হাইকোর্ট বিভাগে জরুরি বিষয় নিষ্পত্তির জন্য অবকাশকালীন বেঞ্চ গঠন করে দেন প্রধান বিচারপতি।

প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নির্দেশে অবকাশে জরুরি বিষয় নিষ্পত্তির জন্য সুনির্দিষ্ট বিচারিক এখতিয়ার দিয়ে হাইকোর্ট বিভাগে বেঞ্চ গঠন করা হয়। এ ছাড়া আপিল বিভাগে চেম্বার কোর্টে জরুরি মামলা সংক্রান্ত বিষয়ে শুনানি ও আদেশ হয়।

অবকাশ শেষে শুনানির অপেক্ষায় গুরুত্বপূর্ণ মামলাসমূহ
এবার সুপ্রিম কোর্ট খোলার পর আপিল বিভাগে সংবাদপত্র কর্মীদের নতুন বেতন কাঠামো নবম ওয়েজ বোর্ডের গেজেট প্রকাশ নিয়ে ১৯ জুলাই শুনানির জন্য দিন ধার্য রয়েছে।

নিউজ পেপার ওনার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (নোয়াব) করা রিটের প্রাথমিক শুনানি নিয়ে বিচারপতি ওবায়দুল হাসান ও বিচারপতি মোহাম্মদ আলীর হাইকোর্ট বেঞ্চ ৬ আগস্ট (মঙ্গলবার) রুলসহ গেজেট প্রকাশে ২ মাসের স্থিতাবস্থার আদেশ দেন।

ওই আদেশ স্থগিত চেয়ে আপিল বিভাগে আবেদন করে রাষ্ট্রপক্ষ। ১৪ আগস্ট (বুধবার) আপিল বিভাগের চেম্বার বিচারপতি মো. নূরুজ্জামানের আদালত আবেদনটি পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চে শুনানির জন্য ১৯ আগস্ট দিন ধার্য করেন।

এদিকে কাঁঠালবাড়ী ঘাটে ফেরিতে অ্যাম্বুলেন্সে স্কুলছাত্র তিতাস ঘোষের মৃত্যুর ঘটনায় করা রিটের পরবর্তী আদেশের জন্য ২৮ আগস্ট দিন ধার্য রয়েছে।

গত ৩১ জুলাই এক আদেশে হাইকোর্ট ওই ঘটনা তদন্ত করে তিন সপ্তাহের মধ্যে প্রতিবেদন দাখিলে জনপ্রশাসন সচিবকে নির্দেশ দিয়েছেন। অতিরিক্ত সচিবের নিচে নয় এমন পদমর্যাদার কর্মকর্তার নেতৃত্বে এ তদন্ত করাবেন জনপ্রশাসন সচিব। একইসঙ্গে তিতাসের পরিবারকে কেন তিন কোটি টাকা ক্ষতিপূরণ দেওয়া হবে না তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেন হাইকোর্ট।

এছাড়া সোনাগাজী থানার সাবেক ওসি মোয়াজ্জেম হোসেন, বরগুনার রিফাত হত্যা মামলায় তার স্ত্রী আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নির জামিন আবেদনের ওপর হাইকোর্টে শুনানি হতে পারে।