ভার্চুয়াল কোর্ট : সারাদেশে তিন দিনে ২৯৭৮ আসামির জামিন

প্রতিবেদক : বার্তা কক্ষ
প্রকাশিত: ১৫ মে, ২০২০ ২:৪৫ অপরাহ্ণ
আদালত (প্রতীকী)

করোনাভাইরাস সংক্রমণ রোধে সারা দেশের অধস্তন আদালতে ভার্চুয়াল পদ্ধতিতে মামলা শুনানি চলছে। গত তিন দিনে ভার্চুয়াল আদালতে মোট ২ হাজার ৯৭৮ আসামির জামিন দেয়া হয়েছে।

সুপ্রিম কোর্টের মুখপাত্র ও স্পেশাল অফিসার ব্যারিস্টার মোহাম্মদ সাইফুর রহমানের পাঠানো বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, বৃহস্পতিবার (১৪ই মে) ২ হাজার ৪৩৪টি আবেদন নিষ্পত্তি করে ১৮২১ জন আসামিকে জামিন দেয়া হয়েছে।

এর আগে মঙ্গলবার ১৪৪ ও বুধবার ১ হাজার ১৩ জনকে জামিন দেয়া হয়েছিল। বৃহস্পতিবারসহ সারা দেশের নিম্ন আদালতে গত তিন দিনে ভার্চুয়াল শুনানি নিয়ে মোট ২ হাজার ৯৭৮ আসামির জামিন দেয়া হয়েছে।

গত ১০ মে অধস্তন আদালতের ভার্চুয়াল কোর্টে শুধু জামিন শুনানি করতে নির্দেশ দিয়েছেন সুপ্রিম কোর্ট প্রশাসন। এ বিষয়ে ওইদিন একটি বিজ্ঞপ্তি জারি করেছেন সুপ্রিম কোর্টের রেজিস্ট্রার জেনারেল মো. আলী আকবর।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, বিশ্বব্যাপী করোনা ভাইরাস সংক্রমণ মোকাবিলা এবং এর ব্যাপক বিস্তার রোধকল্পে সতর্কতামূলক ব্যবস্থা হিসেবে আগামী ১৬ মে পর্যন্ত সব আদালতে ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে।

‘উদ্ভূত পরিস্থিতিতে ছুটির সময়ে বাংলাদেশের প্রত্যেক জেলার জেলা ও দায়রা জজ, মহানগর এলাকার মহানগর দায়রা জজ, নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক, বিশেষ জজ আদালতের বিচারক, সন্ত্রাস দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক, দ্রুতবিচার ট্রাইব্যুনালের বিচারক, জননিরাপত্তা বিঘ্নকারী অপরাধ দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারকক এবং জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট, মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট নিজে অথবা তার নিয়ন্ত্রণাধীন এক বা একাধিক ম্যাজিস্ট্রেট দ্বারা আদালত কর্তৃক তথ্য-প্রযুক্তি ব্যবহার অধ্যাদেশ ২০২০ এবং উচ্চ আদালতের জারিকৃত বিশেষ প্র্যাকটিস নির্দেশনা’ অনুসরণ করে শুধু জামিন সংক্রান্ত বিষয়গুলো তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহার করে ভার্চ্যুয়াল উপস্থিতির মাধ্যমে নিষ্পত্তি করার উদ্দেশ্যে আদালতের কার্যক্রম পরিচালনার জন্য নির্দেশ দেওয়া হলো।

উল্লেখ্য, ৯ মে ভার্চুয়াল কোর্ট সম্পর্কিত অধ্যাদেশ জারি করা হয়। অধ্যাদেশে বলা হয়, সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ বা ক্ষেত্রমত হাইকোর্ট বিভাগ সময় সময় প্র্যাকটিস নির্দেশনা (বিশেষ বা সাধারণ) জারি করতে পারবেন।