সাব-রেজিস্টার দলিল নিবন্ধন না করলে আছে আইনি প্রতিকার

প্রতিবেদক : বার্তা কক্ষ
প্রকাশিত: ৫ জুলাই, ২০২০ ১২:১৮ পূর্বাহ্ণ
সৈয়দা তাসলিমা কাওয়াকিবি তন্বী

সৈয়দা তাসলিমা কাওয়াকিবি তন্বী:

স্থাবর সম্পত্তি হস্তান্তর সম্পর্কিত সকল দলিল যেমন: বিক্রয় চুক্তি/দলিল, হেবা ঘোষণা দলিল বা দান সম্পর্কিত দলিল নিবন্ধন আইন ১৯০৮ এর ১৭ ধারা অনুসারে নিবন্ধন বাধ্যতামূলক। নিবন্ধনের জন্য প্রয়োজন বিক্রেতা বা তার পূর্ববর্তীর নামে সর্বশেষ খতিয়ান, ক্রেতা-বিক্রেতার ছবি, পরিচয়পত্র এবং হস্তান্তরিত জমিটি সরকারি কোন কর্তৃপক্ষ এর অধীনস্ত থাকলে উক্ত কর্তৃপক্ষের অনুমতি বা ছাড়পত্র। স্থানীয় সোনালী ব্যাংকে পে-অডার এবং চালানের মাধ্যমে যথাযথ নিবন্ধন ফি এবং শুল্ক পরিশোধ করতে হয়। নিবন্ধন (সংশোধন) আইন ২০০৪ অনুযায়ী দলিল এর খসড়া প্রস্তুত করে তাতে সঠিকভাবে স্ট্যাম্প যুক্ত করে মূল দলিল তৈরি করে তাতে বিক্রেতা এবং তার সনাক্তকারীর স্বাক্ষর বা টিপসই প্রদান এর মাধ্যমে দলিল সম্পাদিত হয়।

দলিল সম্পাদনের তিন মাসের মধ্যে ক্রেতা বা তার প্রতিনিধি দলিল নিবন্ধনের জন্য মূল দলিলটি স্থানীয় সাব-রেজিস্টার এর নিকট পেশ করবেন এবং সাব-রেজিস্টার উক্ত আইনের ৩৪ ধারা আনুসারে দলিল সম্পাদনকারী ও তার সনাক্তকারীর পরিচিতি এবং দাখিলকৃত কাগজপত্রের বৈধতা যাচাই বাছাই করে দলিলটি নিবন্ধনের জন্য গ্রহণ করে ক্রেতাকে একটি রসিদ প্রদান করবেন।

যদি সাব-রেজিস্টার নিবন্ধন করতে আগ্রাহ্য করেন সেক্ষেত্রে ক্রেতাকে মূল দলিল ফেরত দিবেন এবং কি কারণে নিবন্ধন করতে আগ্রাহ্য করলেন তা উল্লেখ করে আদেশ দিবেন। উক্ত আদেশ প্রদানের ৩০ দিনের মধ্যে ক্রেতা জেলা রেজিস্টার বরাবর ৭২ বা ৭৩ ধারা আনুসারে আপীল আবেদন করতে পারবেন। জেলা রেজিস্টার উক্ত আপীল গ্রহণ করে ৭৪ ধারায় তদন্ত করে নিবন্ধনের জন্য সাব-রেজিস্টারকে আদেশ দান করতে পারেন অন্যথায় আপীল খারিজ করতে পারেন। যদি জেলা রেজিস্টার আপীল খারিজ করে দেন তবে ক্রেতা উক্ত খারিজ আদেশের ৩০ দিনের মধ্যে নিবন্ধন আইনের ৭৭ ধারা আনুসারে দেওয়ানী আদালতে মামলা দায়ের করতে পারবেন।

সৈয়দা তাসলিমা কাওয়াকিবি তন্বী: আইনজীবী।