দেড় যুগ বিনাবিচারে কারাবন্দি আরো চারজনকে হাইকোর্টে হাজিরের নির্দেশ


প্রকাশিত :২০.১১.২০১৬, ১১:৫৬ পূর্বাহ্ণ

suprime-court-of-bangladesh১৭ বছর বিনা বিচারে কারাগারে আটক শফিকুল ইসলাম শিপন নামে একজনের জামিনের দুই সপ্তাহের মধ্যে কারাবন্দি আরো চারজনকে হাইকোর্টে হাজিরের নির্দেশ দেয়া হয়েছে। হত্যা মামলার আসামি এ চারজনও দেড় যুগ বিনাবিচারে কারাবন্দি রয়েছেন। একই সঙ্গে বিনা বিচারে ১৫ থেকে ১৭ বছর ধরে কারাগারে থাকা চাঁন মিয়া, মকবুল, সেন্টু ও বিল্লালকে কেন জামিন দেওয়া হবে না, তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেছেন হাইকোর্ট।

আজ রোববার (২০ নভেম্বর) বিচারপতি ইনায়েতুর রহিম ও বিচরপতি জে বি এম হাসানের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

একটি বেসরকারি চ্যানলে প্রচারিত একটি প্রতিবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে হাইকোর্ট স্বপ্রণোদিত হয়ে এ আদেশ দিয়েছেন।

আগামী ৪ ডিসেম্বর তাদের আদালতে হাজির করতে বলা হয়েছে। ওই দিনের মধ্যে নিম্ন আদালতকে তাদের বিষয়ে তথ্য দিতেও নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

এই ৪ জনকে নিয়ে স্যাটেলাইট টেলিভিশন ‘চ্যানেল টোয়েন্টিফোর’-এ গত ১৬ নভেম্বর প্রচারিত একটি প্রতিবেদন আইনজীবী কুমার দেবুল দে হাইকোর্টের নজরে আনলে আদালত বিষয়টি আমলে নিয়ে এই আদেশ দেন।

আসামিদের মধ্যে ঢাকার শ্যামপুর থানার এক হত্যা মামলায় ১৯৯৯ সাল থেকে চাঁন মিয়া কাশিমপুর কারাগারে বন্দি রয়েছেন। গত ১৭ বছরেও চাঁন মিয়ার বিরুদ্ধে দায়ের হওয়া হত্যা মামলার কোনো অগ্রগতি নেই। মামলাটি বর্তমান ঢাকার পরিবেশ আদালতে বিচারাধীন।

একইভাবে মকবুল রাজধানীর উত্তরা থানার একটি হত্যা মামলায় ২০০০ সাল থেকে কারাগারে আছেন। ঢাকার অতিরিক্ত মহানগর দায়রা জজ আদালতে মকবুলে পক্ষে আইনি লড়াই করারও কেউ ছিলো না।

মতিঝিলের এজিবি কলোনীর সেন্টু কামাল গ্রেফতার হন ২০০১ সালে। সবশেষ গত মাসেও তাকে হাজির করা হয়েছিল ঢাকার বিশেষ জজ আদালতে।কিন্তু এই দীর্ঘ ১৫ বছরে ৫৯ কার্যদিবস কারাগারে হাজির করা হলেও মামলা শেষ হয়নি।

মামলা শেষ হয়নি কুমিল্লার বিল্লাল হোসেনেরও। তেজগাঁও থানায় দায়ের হওয়া একটি হত্যা মামলায় তিনি কাশিমপুর কারাগারে ২০০২ সাল থেকে বন্দি রয়েছেন। তার মামলাটিও ঢাকার অতিরিক্ত মহানগর দায়রা জজ আদালতে বিচারাধীন।

 
সুপ্রিমকোর্ট প্রতিনিধি/ল’ইয়ার্সক্লাববাংলাদেশ.কম



ট্রেডমার্ক ও কপিরাইট © 2016 lawyersclubbangladesh এর সকল স্বত্ব সংরক্ষিত।
Designed By Linckon