মালয়েশিয়ায় পাচার হওয়া ৫৯ বাংলাদেশি উদ্ধার


প্রকাশিত :২১.১২.২০১৬, ১২:২৫ অপরাহ্ণ

manob-pacharমানব পাচার চক্রের শিকারে পরিণত হওয়া ৫৯ বাংলাদেশিকে উদ্ধার করেছে মালয়েশিয়ার অভিবাসন বিভাগ। সোমবার দেশটির ডেসা পেতালিং এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদের উদ্ধার করা হয়েছে, মঙ্গলবার (২০ ডিসেম্বর) এমন সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে দেশটির নিউ স্ট্রেইটস টাইমস পত্রিকার অনলাইন সংস্করণে।

এ ঘটনায় মানব পাচারের সঙ্গে জড়িত থাকার সন্দেহে একজন বাংলাদেশি নাগরিককে আটক করা হয়েছে বলে সংবাদে জানানো হয়েছে। এ ছাড়া পাচারকারী দলের সঙ্গে যোগসাজশের সন্দেহে অপর এক বাংলাদেশি ও দুই নারীকেও আটক করা হয়েছে।

মালয়েশিয়ার অভিবাসন বিভাগের মহাপরিচালক মুস্তাফার আলী সেখানকার গণমাধ্যমকে বলেছেন, ‘স্থানীয় সময় সোমবার ভোর সাড়ে চারটার দিকে ডেসা পেতালিংয়ের দুটি ভবনে অভিযান চালায় আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর একটি দল। এ সময় তদন্তের স্বার্থে এক বাংলাদেশিকে আটক করা হয়। ধারণা করা হচ্ছে, তিনি বাংলাদেশি কর্মীদের এখানে আনা ও এখানে তাদের সহযোগীদের হাতে তুলে দিতে দালাল হিসেবে কাজ করছিলেন।’

59-bangladeshi-innerএক বিবৃতিতে মঙ্গলবার মুস্তাফার আলী বলেছেন, ‘পাচারের শিকার বাংলাদেশিদের মোবাইল ফোন, পাসপোর্ট ও নগদ অর্থ ওই চক্রের লোকেরা জোর করে রেখে দিয়েছে। তাদের ফোনে কথা বলার সুযোগ দেওয়া হয়নি। কথামতো না চললে বা পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করলে তাদের শারীরিক ক্ষতি করারও হুমকি দিত পাচারকারী দলের লোকজন।পাচারের শিকার বাংলাদেশিদের মালয়েশিয়ায় নেওয়ার জন্য ভালো বেতনের লোভ দেখানো হতো।’

মুস্তাফার আলী জানিয়েছেন, পাচার হওয়া বাংলাদেশিদের প্রতি মাসে ১৮ থেকে ২০ হাজার রিঙ্গিত বেতন দেওয়ার লোভ দেখানো হয়। তাদের বাংলাদেশ থেকে বিমানে করে ইন্দোনেশিয়ার জাকার্তায় নেওয়া হয়। সেখান থেকে নৌকায় করে মালয়েশিয়ায় আনে ওই পাচারকারী চক্র।

মুস্তাফার আলীর ভাষ্যমতে, ঘটনাস্থল থেকে একটি কম্পিউটার ও প্রিন্টার উদ্ধার করা হয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে, এ দুটি যন্ত্রের সাহায্যে পাচারকারী চক্র ভুয়া অভিবাসন নিরাপত্তা স্টিকার তৈরি করত।

 

 
আন্তর্জাতিক ডেস্ক/ল’ইয়ার্সক্লাববাংলাদেশ.কম



ট্রেডমার্ক ও কপিরাইট © 2016 lawyersclubbangladesh এর সকল স্বত্ব সংরক্ষিত।
Designed By Linckon