টাউট মুন্সিদের সহযোগী আইনজীবীদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেয়া হোক


প্রকাশিত :০৩.০৮.২০১৭, ১১:১৫ পূর্বাহ্ণ

20631723_468827220165138_82টি. আর. খান

আমি অনেক আগে থেকেই বলে আসছি আদালতপাড়ায় মুন্সীখানার দরকার কি। এই মুন্সীখানাই হচ্ছে আদালত অঙ্গনে টাউটারির প্রধান কেন্দ্র। যার প্রমান গতকাল চট্টগ্রাম জেলা আইনজীবী সমিতি অত্যন্ত সাহসী অভিযান পরিচালনা করে দেখিয়ে দিয়েছেন। ভাবতে পারেন! একটা মুন্সীখানায় প্রায় হাজারখানেক মামলার ফাইল পাওয়া গেছে। আরও প্রায় কয়েক হাজার ফাইল উদ্ধার করা যায়নি। কত বড় ভয়াবহ ব্যাপার!

মুন্সীখানায় এই যে এতো মামলার ফাইল পাওয়া গেলো এর জন্য মুন্সীদের নির্বাচিত কর্মকর্তাদের কাছ থেকে জবাব চাওয়া হোক। মুন্সীদের সভাপতি নাকি সেক্রেটারি তো গতকালের অভিযানের পর ঔদ্ধত্য প্রকাশ করে বলেছে আইনজীবী সমিতি অভিযান পরিচালনার আগে তাদের অবহিত করেনি। বাহ! কি হাস্যকর ঔদ্ধত্য! তোমার ভাগ্য ভালো যে আমি সমিতিতে নেই। নইলে ডেকে নিয়ে প্রথমে তোমার কান গরম করে দিতাম।

মুন্সীখানায় এতো চেয়ার টেবিল কেন রাখা হয়েছে? অফিস চলাকালীন সময়ে মুন্সীখানা কেন খোলা থাকবে? মুন্সীখানা যদি রাখতেই হয় সেখানে কেরাম বোর্ড, দাবা, ছক্কা এসব খেলার জিনিস রাখতে পারে বিকেল ৫ টার পর বিনোদনের জন্য। আইনজীবী সমিতি থেকে আদেশ জারি করে দেয়া হোক যেন মুন্সীখানা বিকেল ৫ টার আগে খোলা না হয়। সেখান থেকে সমস্ত চেয়ার টেবিল অপসারণ করা হোক।

মুন্সিখানা বন্ধ করে দেয়াই উত্তম। আর যদি সেটা রাখতেই হয় তাহলে তা সিসিটিভির আওতাভুক্ত করা এখন সময়ের দাবি।

মুন্সীখানায় যেসব উকিলেরা বসে থাকে এইগুলারে ধরেন। মুন্সিদের মামলা যেসব উকিলেরা করে সেগুলারে ধরেন। পুলিশের সেরেস্তায় যেসব উকিলেরা বসে থাকে তাদের ধরেন। থানায় থানায় কোন কোন উকিল দালালি করে মামলার ধান্দা করে সেগুলারে ধরেন। কিছু উকিল আছে যাদের মুন্সি আছে ১০/১২ জন। এরা সেসব উকিলদের চেম্বারে আড্ডা দেয়, খোশগল্প করে। এইসব টাউট লালনকারী সো কল্ড উকিলের চেম্বারে অভিযান পরিচালনা করুন এবং এদের ধরুন।

শুধু টাউট মুন্সীদের ধরলে টাউটারি এবং অনিয়ম দূর্ণীতি বন্ধ হবেনা। দূর্ণীতিবাজ, ঘুষের দালাল, মুন্সিদের সহযোগী, টাউটদের সহযোগী উকিলদের বিরুদ্ধেও ব্যাবস্থা নিতে হবে। তবেই আদালত অঙ্গন কলুষমুক্ত হবে।

যে অভিযান শুরু হয়েছে সেটা যেন বন্ধ না হয়। আরো কঠোরভাবে চলতে থাকুক অভিযান। সাধারণ আইনজীবীরা পাশে থাকবে এমন সাহসিকতাপূর্ণ বলিষ্ঠ পদক্ষেপের।
আমরা চাই আদালত অঙ্গন বিজ্ঞ আইনজীবীদের কোলাহলে মুখর থাকবে। চিন্তা করে দেখুন আইনজীবী সমিতি কর্তৃক উদ্ধার হওয়া ফাইলগুলো যদি আইনজীবীরা ডিল করতেন আইনজীবী এবং বিচারপ্রার্থী উভয়ের স্বার্থ রক্ষা হতো।

আইনজীবী সমিতির এই ধরণের বলিষ্ঠ উদ্যোগকে স্বাগত জানাই। সমিতির এই ধরণের উদ্যোগে পাশে আছি এবং থাকবো।

লেখক: আইনজীবী, চট্টগ্রাম আদালত।



ট্রেডমার্ক ও কপিরাইট © 2016 lawyersclubbangladesh এর সকল স্বত্ব সংরক্ষিত।
Designed By Linckon