‘কারাগারের ৯ শতাধিক শিশুকে সংস্কৃতিসহ বিভিন্ন শিক্ষা দেয়া হয়েছে’


প্রকাশিত :০৭.১০.২০১৭, ৫:১৬ অপরাহ্ণ

Child-in-jail-Bangladeshসংস্কৃতি ও বিভিন্ন বিষয়ে শিক্ষায় মেধা বিকাশের লক্ষ্যে দেশের ১০টি কেন্দ্রীয় কারাগারের ৯শ’ শিশুকে বাংলাদেশ শিশু একাডেমি প্রাক-শিক্ষা প্রদান করেছে। এই শিশুরা কারাগার থেকে বের হয়ে যাওয়ার পর তাদের শিক্ষা জীবনে তা সহায়ক ভূমিকা রাখছে।

কারাগারগুলোতে শিশুদের যেসব বিষয়ে শিক্ষা দেয়া হচ্ছে তা হলো- নাচ, গান, ব্যায়াম, ছড়া, অভিনয়, গল্প, বাংলা পঠন ও লিখন, গণিত, চারু ও কারু, খেলা, পরিবেশ ও স্বাস্থ্য, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি, নিরাপত্তা ও সৃজনশীলতা। প্রতিদিন কারাগারগুলোতে এ সব বিষয়ে আড়াই ঘণ্টা করে শিক্ষা দেয়া হচ্ছে।

এনসিটিবি’র কারিকুলাম অনুযায়ী ‘শিশুর বিকাশে প্রারম্ভিক শিক্ষা’ শীর্ষক প্রকল্পের অধীনে একাডেমি কারাগারের শিশুদের এই কার্যক্রম বাস্তবায়ন করা হচ্ছে। গাজীপুরের কাশিমপুর, রংপুর, রাজশাহী, ময়মনসিংহ, যশোর, কুমিল্লা, চট্টগ্রাম, সিলেট, বরিশালসহ দশটি কারাগারে এই প্রকল্পের কাজ চলছে। চার বছরের শিশু থেকে শুরু করে বিভিন্ন বয়সের শিশুদের এ কার্যক্রমে সম্পৃক্ত করা হচ্ছে। শিশু ও মহিলা বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের অর্থায়নে এই প্রকল্প বাস্তবায়ন করছে একাডেমি।

বাংলাদেশ শিশু একাডেমির সংশ্লিষ্ট বিভাগের কর্মকর্তা তরিকুল ইসলাম চৌধুরী এসব তথ্য জানান। তিনি জানান, মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের অর্থায়নে কারাগারগুলোতে এ কার্যক্রম বাস্তবায়ন করছে শিশু একাডেমি। কার্যক্রম বাস্তবায়নের করা হচ্ছে দেশের দশটি কেন্দ্রীয় কারাগার অভ্যন্তরে ‘প্রাক-শিক্ষা কেন্দ্র’ স্থাপনের মাধ্যমে। কেন্দ্রগুলোতে শিক্ষা উপকরণ হিসেবে প্রকল্প থেকে বই, খাতা, স্লেট, পেনসিল, কলম, চক, খেলনা, ব্লাকবোর্ড, ফ্লোরমেট সরবরাহ করা হয়। এ ছাড়া জেলা শিক্ষা অফিস থেকে দেয়া হচ্ছে, শিক্ষক সহায়িকা, আমার বই, এসো লিখতে শিখি, গল্পের ও ছড়ার বই, বিভিন্ন চার্ট, ক্লাস কার্ড ইত্যাদি।

প্রকল্পের অধীনে কেন্দ্রগুলোতে নিয়োগ দেয়া শিক্ষকরা এ কার্যক্রম পরিচালনা করছেন। প্রকল্পের অধীনে প্রতিমাসে শিশুদের অভিভাবকদের নিয়ে মতবিনিময় সভা করা হচ্ছে।

-বাসস।

 

সম্পাদনা- ল’ইয়ার্স ক্লাব বাংলাদেশ ডটকম



ট্রেডমার্ক ও কপিরাইট © 2016 lawyersclubbangladesh এর সকল স্বত্ব সংরক্ষিত।
Designed By Linckon