‘জোর করে প্রধান বিচারপতির কাছ থেকে পদত্যাগপত্র নেওয়া হয়েছে’


প্রকাশিত :১২.১১.২০১৭, ১১:৩১ পূর্বাহ্ণ

প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার পদত্যাগের বিষয়ে সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সভাপতি জয়নুল আবেদীন বলেছেন, ‘এ ধরনের ঘটনা জাতির ইতিহাসে ঘটেনি। সেজন্য বিচার বিভাগের আজকের দিনটি কালো দিন। একজন প্রধান বিচারপতিকে একটি রায়ের কারণে পদ থেকে বিদায় নিতে হলো এবং জোর করে তার কাছ থেকে পদত্যাগপত্র নেওয়া হলো’।

বিচারপতি এস কে সিনহার পদত্যাগের খবর প্রকাশের পর শনিবার (১১ নভেম্বর) বিকেলে সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির নিজ কার্যালয়ে ব্রিফিংয়ে এসব মন্তব্য করেন তিনি। সংবাদ সম্মেলনে অন্যদের মধ্যে সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সহসভাপতি উম্মে কুলসুম বেগম উপস্থিত ছিলেন।

বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান পদে থাকা এ জ্যেষ্ঠ আইনজীবী বলেন, ‘আমরা এখনও জানি না, তিনি কিভাবে পদত্যাগ করলেন? ই-মেইলের মাধ্যমে করলেন, না অন্য কোনো এজেন্সি সিঙ্গাপুরে অবস্থান করে তার কাছ থেকে পদত্যাগপত্র নিয়ে এসেছেন’।

জয়নুল আবেদীন বলেন, ‘বাংলাদেশের ইতিহাসে আজকের দিনটি বিচার ব্যবস্থার জন্য, আইনের শাসনের জন্য অত্যন্ত ঐতিহাসিক ও গুরুত্বপূর্ণ। এক কথায় বলতে গেলে, এই দেশ স্বাধীন হওয়ার পর যা ঘটেনি, তা ঘটে গেল। এ অবস্থা বাংলাদেশের ইতিহাসে আমরা কোনোদিন দেখিনি’।

‘শুধু একটি ঘটনা দেখেছিলাম। ১৯৮২ সালে এরশাদ সরকারের সময় প্রধান বিচারপতি এজলাসে বসে জানতে পারলেন, তাকে অপসারণ করা হয়েছে। তারপর তিনি আইনজীবী সমিতিতে এসে বলেছিলেন, এ হামলা, এই যে পদত্যাগ করানো হলো, এটি শুধু বিচারপতির ওপরে নয়, এটি আইনের শাসনের ওপর হামলা’।

বারের সভাপতি আরও বলেন, ‘আমরা মনে করি, স্বেচ্ছায় এ পদত্যাগপত্র আসেনি। তারপরেও আমরা আপনাদের মাধ্যমে জানতে পারলাম, সেটি গ্রহণ করা হয়েছে। যদিও গ্রহণ বা বর্জনের কথা আমাদের সংবিধানে নেই। তারপরেও শুনলাম, পদত্যাগপত্র গ্রহণ করেছেন’।

‘তাহলে বাংলাদেশের প্রধান বিচারপতির পদটি শূন্য অবস্থায় আছে। কিন্তু এ পদ শূন্য থাকতে পারে না। আমরা মনে করি, রাষ্ট্রপতি তার বিবেক দিয়ে প্রধান বিচারপতি নিয়োগ দেওয়ার পরেই আমরা বুঝতে পারবো, আইনের শাসনের ভবিষ্যৎ কি? তবে গত কয়েকদিনে যে ঘটনা ঘটলো, তা আইনের শাসনের ওপর কালো থাবা বলেই আমরা মনে করি’।

দীর্ঘ একমাস ১০ দিন ছুটির শেষ দিনে শুক্রবার (১০ নভেম্বর) সিঙ্গাপুর থেকে হাইকমিশনের মাধ্যমে রাষ্ট্রপতির কাছে তার পদত্যাগপত্র পাঠিয়ে দেন দেশের ২১তম প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহা। শনিবার (১১ নভেম্বর) বেলা ১টা নাগাদ পদত্যাগপত্রটি বঙ্গভবনে পৌঁছে।

আগামী বছরের ৩১ জানুয়ারি প্রধান বিচারপতির পদ থেকে অবসরে যাওয়ার দুই মাস ২১ দিন আগেই পদত্যাগ করলেন বিচারপতি সিনহা। ২০১৫ সালের ১৭ জানুয়ারি নিয়োগ পাওয়া এই প্রধান বিচারপতি পৌনে তিন বছর দায়িত্বে ছিলেন।

 

সুপ্রিমকোর্ট প্রতিনিধি/ল’ইয়ার্স ক্লাব বাংলাদেশ ডটকম



ট্রেডমার্ক ও কপিরাইট © 2016 lawyersclubbangladesh এর সকল স্বত্ব সংরক্ষিত।
Designed By Linckon