রোহিঙ্গাদের ওপর নিপীড়ন-নির্যাতন যুদ্ধাপরাধের শামিল


প্রকাশিত :১৯.১১.২০১৭, ৫:১০ অপরাহ্ণ

মিয়ানমার সরকার ও সামরিক বাহিনী রোহিঙ্গদের ওপর যে নিপীড়ন-নির্যাতন চালাচ্ছে তাকে যুদ্ধপরাধ ও জাতিগত নিধনের মতো অপরাধ বলে মন্তব্য করেছেন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সিনেটর জেফ মার্কলে। মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে রোহিঙ্গাদের মৌলিক মানবাধিকারের লঙ্ঘন হচ্ছে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

আজ রোববার (১৯ নভেম্বর) গণভবনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেন সিনেটর জেফ মার্কলে।

সাক্ষাৎকালে উপস্থিত ছিলেন প্রধানমন্ত্রীর পররাষ্ট্র বিষয়ক উপদেষ্টা ড. গওহর রিজভী, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের মুখ্যসচিব কামাল আব্দুল নাসের চৌধুরী, পররাষ্ট্রসচিব শহীদুল হক।

সাক্ষাৎকালে যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিনিধি দলে আরও ছিলেন, মার্কিন সিনেটর রিচার্ড ডারবিন, কংগ্রেসম্যান বেটি ম্যাককালাম, ইয়ান শাকোস্কি, ডেভিড এন সিসিলিন, ঢাকায় নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত মার্শা ব্লুম বার্নিকাট, ইউএস অ্যাম্বাসির ডেপুটি চিফ অব মিশন জোয়েল রিফম্যান, লেজিসলেটিভ ডিরেক্টর জেরিমিয়া বাউম্যান, সিনেটর ডারবিন এমএলএ রব লিওনার্ড।

সাক্ষাৎ শেষে প্রেস ব্রিফিংয়ের মাধ্যমে সাংবাদিকদের এসব কথা জানান প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম।

যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিনিধি দল রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শন করে রোহিঙ্গাদের মুখ থেকে মিয়ানমার সেনাবাহিনীর নির্মম অত্যাচারের কথা শুনেছে বলে জানিয়েছেন সিনেটর জেফ মার্কলে।

তিনি বলেন, রোহিঙ্গারা শুধু নির্যাতনের কথাই বলেনি, বাংলাদেশের প্রতি গভীর কৃতজ্ঞাতাও জানিয়েছে। তারা নিজ দেশে মিয়ানমারে ফিরে যেতে চায়।

রোহিঙ্গা সংকটের সমাধানে বাংলাদেশকে সব ধরনের সহযোগিতা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র করবে বলেও আশ্বাস দিয়েছেন মার্কিন সিনেটর জেফ মার্কলে। সাক্ষাৎকালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভূয়সী প্রশংসা করেন তিনি।

সাক্ষাৎকালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, আমরা মানবিক দিক বিবেচনা করে রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দিয়েছি। রোহিঙ্গাদের শুধু ফিরিয়ে নেওয়া নয়, তাদের পরিপূর্ণ নিরাপত্তা ও পুনর্বাসন নিশ্চিত করতে হবে।

কফি আনানের সুপারিশ বাস্তাবায়ন করতে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের প্রতি আহ্বান জানান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

 

নিজস্ব প্রতিনিধি/ল’ইয়ার্স ক্লাব বাংলাদেশ ডটকম



ট্রেডমার্ক ও কপিরাইট © 2016 lawyersclubbangladesh এর সকল স্বত্ব সংরক্ষিত।
Designed By Linckon