ঘোষিত তারিখেই হচ্ছে বার কাউন্সিলের লিখিত পরীক্ষা

প্রতিবেদক : বার্তা কক্ষ
প্রকাশিত: ৬ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ১২:২৩ অপরাহ্ণ
বাংলাদেশ বার কাউন্সিল

আইনজীবী হিসেবে তালিকাভুক্তির জন্য বাংলাদেশ বার কাউন্সিলের প্রিলিমিনারী (এমসিকিউ) পরীক্ষায় উত্তীর্ণ আইন শিক্ষার্থীদের লিখিত পরীক্ষা আগামী ২৬ সেপ্টেম্বর হচ্ছেই। ওই দিন পরীক্ষা নেওয়ার প্রশ্নে অনড় বার কাউন্সিল কর্তৃপক্ষ।

বার কাউন্সিলের ভাইস চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট ইউসুফ হোসেন হুমায়ুনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এক ভার্চুয়াল সভায় শনিবার (৫ সেপ্টেম্বর) পরীক্ষার তারিখ ঠিক রাখার বিষয়ে সিদ্ধান্ত হয় বলে জানা গেছে।

যদিও একদল শিক্ষার্থী লিখিত পরীক্ষা ছাড়াই আইনজীবী হিসেবে বার কাউন্সিলের সনদের জন্য আন্দোলন করছে।

উল্লেখ্য, ২০১৭ ও ২০২০ সালে বার কাউন্সিলের এমসিকিউ পরীক্ষায় উত্তীর্ণ ১২৮৭৮ জন শিক্ষার্থী এই পরীক্ষায় বসতে পারবেন। এর মধ্যে ২০১৭ সালের ২১ জুলাই এমসিকিউ পরীক্ষায় উত্তীর্ণ ৩৫৯০ জন শিক্ষার্থী রয়েছেন। আর ২০২০ সালে উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীর সংখ্যা ৮৭৬৪ জন।

প্রসঙ্গত, ২০১৭ সালের ২১ জুলাই অনুষ্ঠিত আইনজীবী তালিকাভুক্তির প্রিলিমিনারি (এমসিকিউ) পরীক্ষায় উত্তীর্ণরা পুনরায় লিখিত পরীক্ষায় অংশগ্রহণের জন্য আগামী ৮ সেপ্টেম্বরের মধ্যে ফরম ফিলাপ করে বার কাউন্সিলের অফিসে জমা দিতে হবে।

গত ২৪ আগস্ট সংস্থার ওয়েবসাইটে এ সংক্রান্ত বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়েছে। বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী, দ্বিতীয়বার লিখিত পরীক্ষায় অংশগ্রহণের জন্য বার কাউন্সিলের (Re-appear) ফরম পূরণ করতে হবে। পুনরায় পরীক্ষায় অংশগ্রহণের জন্য পরীক্ষা ফি বাবদ ব্যাংক ড্রাফ্‌ট অথবা নীল রশিদে ১৫০০/- টাকা এবং ফরম ফি বাবদ ব্যাংক ড্রাফ্‌ট অথবা হলুদ রশিদে ৫০০/- টাকার স্লীপ/ড্রাফ্‌ট সংযোজন করে বার কাউন্সিল অফিসে আগামী ৮ সেপ্টেম্বরের মধ্যে জমা দিতে হবে।

এছাড়া দ্বিতীয়বার লিখিত পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে বার কাউন্সিলের (Re-appear) ফরমের সাথে ২০১৭ সালের ২১ জুলাই অনুষ্ঠিত এমসিকিউ পরীক্ষার প্রবেশপত্রের সত্যায়িত কপি জমা দিতে হবে। এক্ষেত্রে ফরমের নির্ধারিত জায়গায় প্রবেশপত্রে উল্লেখিত রোল নম্বর এবং রেজিস্ট্রেশন নম্বর উল্লেখ করতে হবে। এসব কাগজপত্রের পাশাপাশি সম্প্রতি তোলা ৩ কপি রঙ্গিন ছবি ও ব্যাংক স্লীপ/ড্রাফ্‌টের কপিও জমা দিতে হবে।

সকল কাজজপত্র সঠিক থাকা সাপেক্ষে পরিক্ষার্থীদের প্রবেশপত্র প্রস্তুত করা হবে। প্রবেশপত্র বিতরণের সময়সূচী পরবর্তীতে বার কাউন্সিলের ওয়েবসাইটে প্রকাশ করা হবে।

উল্লেখ্য, গত ২৬ জুলাই বার কাউন্সিল থেকে জারি করা এক নোটিশে বলা হয়, ‘যারা একবার লিখিত পরীক্ষা দিয়ে অনুত্তীর্ণ হয়েছেন, তারা দ্বিতীয়বার লিখিত পরীক্ষা দেওয়ার সুযোগ পাবেন না’- নোটিশের এই অংশটুকু জুড়ে দেওয়ায় ২০১৭ সালের ২১ জুলাই এমসিকিউ পরীক্ষায় উত্তীর্ণ ৩৫৯০ জন শিক্ষার্থীর এবারের লিখিত পরীক্ষা দেওয়া নিয়ে অনিশ্চয়তা দেখা দেয়।

পরবর্তীতে আইনজীবী হিসেবে তালিকাভুক্তির জন্য বাংলাদেশ বার কাউন্সিলের পরীক্ষা বিষয়ক বিধি সংশোধন করে গত ১৩ আগস্ট গেজেট জারি করে আইন মন্ত্রণালয়। গেজেটে একবার এমসিকিউ পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হলে পরপর দুইবার লিখিত পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করার বিধিটি ‘অবিলম্বে কার্যকর’ এর পরিবর্তে ‘২১ জুলাই ২০১৭ থেকে কার্যকর হবে’ বলে উল্লেখ করা হয়। ফলে ২০১৭ সালের ২১ জুলাই এমসিকিউ পরীক্ষায় উত্তীর্ণ প্রার্থীদের আগামী ২৬ সেপ্টেম্বর অনুষ্ঠিতব্য লিখিত পরীক্ষায় বসতে সৃষ্ট আইগত বাধা দূর হয়। এতে করে দেশের ইতিহাসে প্রথমবারের মতো এমসিকিউ পরীক্ষায় উত্তীর্ণ কিন্তু তৎপরবর্তী লিখিত পরীক্ষায় অনুত্তীর্ণ প্রার্থিদের দ্বিতীয়বার লিখিত পরীক্ষায় অংশগ্রহণের সুযোগ মিলল।