পাবনার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসককে তলব

প্রতিবেদক : ল'ইয়ার্স ক্লাব বাংলাদেশ
প্রকাশিত: ১৪ অক্টোবর, ২০২০ ৬:৩১ অপরাহ্ণ
ভার্চুয়াল আদালত (প্রতীকী)

আদালতের আদেশ অমান্য করায় পাবনার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মোঃ মোখলেছুর রহমানকে তলব করা হয়েছে। আগামী ২৫ অক্টোবর তাঁকে স্বশরীরে আদালতে হাজির হয়ে এ বিষয়ে ব্যাখ্যা প্রদানের নির্দেশ দিয়েছেন পাবনার অর্পিত সম্পত্তি প্রত্যর্পণ অতিরিক্ত ট্রাইব্যুনাল।

আজ মঙ্গলবার (১৪ অক্টোবর) ট্রাইবুন্যালের বিচারক এস, এম, শরিয়ত উল্লাহ্‌ এ আদেশ দেন।

আদালত সূত্রে জানা যায়, ২০১৩ সালে ঈশ্বরদী অর্পিত সম্পত্তি প্রত্যর্পণ অতিরিক্ত ট্রাইব্যুনালে একটি ভিপি মামলা দায়ের করেন মোছাঃ নিলুফার জামান নামের এক নারী। মামলাটি দো-তরফাসূত্রে নামঞ্জুর হলে এর বিরুদ্ধে দরখাস্তকারী অর্পিত সম্পত্তি প্রত্যর্পণ আপিল ট্রাইব্যুনালে আপিল দায়ের করেন তিনি।

আপিল ট্রাইব্যুনাল ২০১৮ সালে দো-তরফাসূত্রে আপিল মঞ্জুর করেন এবং জেলা প্রশাসককে ৩০ দিনের মধ্যে আদেশ বাস্তবায়নের নির্দেশ প্রদান করেন। পরবর্তীতে ২০১৮ সালের ২৫ মে দরখাস্তকারী নিলুফার জামান অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) বরাবর তার নামে নামজারি করে দেওয়ার জন্য দরখাস্ত করেন।

এ বিষয়ে গত বছরের ২৪ জানুয়ারি ভিপি কৌশুলি মুস্তাফিজুর রহমান খান পাবনার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসককে (রাজস্ব) ট্রাইব্যুনালের রায়-ডিক্রির আলোকে ব্যবস্থা নেয়ার জন্য লিখিত মতামত প্রদান করেন। কিন্তু, এরপরও পাবনার জেলা প্রশাসক এবং অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) রায়-ডিক্রির আলোকে কোন ব্যবস্থা গ্রহণ করেনি।

অর্পিত সম্পত্তি প্রত্যর্পণ আইন, ২০০১ এর বিধান অনুযায়ী জেলা প্রশাসক ট্রাইব্যুনালের ডিক্রী পাওয়ার পর উক্ত ডিক্রী বাস্তবায়ন করে ট্রাইব্যুনাল বরাবর একটি প্রতিবেদন প্রেরণ করতে হয়। সংশ্লিষ্ট রাজস্ব অফিসে ডিক্রীকৃত সম্পত্তি বাবদ রক্ষিত রেকর্ড অব রাইটস্‌ পরবর্তী ৩০ (ত্রিশ) দিনের মধ্যে সংশোধন করে ডিক্রী প্রাপকের নাম অন্তর্ভুক্তির ব্যবস্থা করে এবং সংশোধিত রেকর্ড অব রাইটস্‌ এর অনুলিপি তাকে প্রদান করে৷

দরখাস্তকারীর আবেদনের পর দীর্ঘদিন পেরিয়ে গেলেও কোন কারণ ছাড়াই দরখাস্তকারীপক্ষকে তার আইনানুগ অধিকার হতে বঞ্চিত রাখা হয়েছে বলে দাবি করে ট্রাইবুন্যালে মামলা করে। আদালত মামলাটি গ্রহণ করে পাবনার জেলা প্রশাসক কবীর মাহমুদ এবং অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মোঃ মোখলেছুর রহমানকে গত ২৬ ফেব্রুয়ারি কারণ দর্শানোর নির্দেশ প্রদান করেন।

বিবাদীরা আদালতে আপত্তি দাখিল করলেও ডিক্রী বাস্তবায়নের জন্য কোনরূপ ব্যবস্থা গ্রহণ করেনি। বিধায়, দরখাস্তকারী মোছাঃ নিলুফার জামান আজ বুধবার (১৪ অক্টোবর) আদালতে পুনরায় অপরপক্ষের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা/গ্রেফতারি পরোয়ানা ইস্যুর জন্য প্রার্থনা করেন।

এরপর আদালত চূড়ান্ত আদেশ প্রদনের পূর্বে সংশ্লিষ্ট অপরপক্ষের নিকট হতে সরাসরি বক্তব্য শোনা প্রয়োজনীয় উল্লেখ করে
পাবনা জেলা প্রশাসক এবং অতিরিক্ত জেলা প্রশাসকের পক্ষে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মোঃ মোখলেছুর রহমানকে আগামী ২৫ অক্টোবর ব্যক্তিগতভাবে আদালতে উপস্থিত হয়ে ডিক্রি বাস্তবায়নের বিষয়ে অগ্রগতি এবং তাদের বক্তব্য উপস্থাপনের জন্য নির্দেশ দেন। একই সাথে ঐ দিন চূড়ান্ত আদেশের জন্য দিন ধার্য করেন আদালত।