মুক্তিযোদ্ধাদের বয়সসীমা নির্ধারণ নিয়ে হাইকোর্টের রায় বহাল

প্রতিবেদক : বার্তা কক্ষ
প্রকাশিত: ২৩ জুন, ২০১৯ ১১:২৩ পূর্বাহ্ণ
উচ্চ আদালত

মুক্তিযোদ্ধাদের ন্যূনতম বয়সসীমা নির্ধারণের গেজেট ও পরিপত্র অবৈধ ঘোষণা করে হাইকোর্টের রায় স্থগিত চেয়ে রাষ্ট্রপক্ষের করা আবেদনে ‘নো অর্ডার’ দিয়েছেন সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ। ফলে হাইকোর্ট যে রায় দিয়েছিলেন, তা বহাল রয়েছে।

আজ রোববার (২৩ জুন) প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বাধীন চার সদস্যের আপিল বিভাগ এই আদেশ দেন।

আজ আদালতে রাষ্ট্রপক্ষে শুনানি করেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম। অন্যদিকে, রিট আবেদনকারীদের পক্ষে শুনানিতে ছিলেন আইনজীবী ওমর সাদাত ও এবিএম আলতাফ হোসেন।

আপিল বিভাগের আজকের এই আদেশের ফলে মুক্তিযোদ্ধাদের ন্যূনতম বয়সসীমা নির্ধারণ অবৈধ ঘোষণা করে হাইকোর্টের দেওয়া রায় বহাল রইল বলে জানিয়েছেন রিট আবেদনকারীদের আইনজীবী ওমর সাদাত বলেন, মুক্তিযোদ্ধাদের ন্যূনতম বয়সসীমা নির্ধারণ অবৈধ ঘোষণা করে হাইকোর্ট যে রায় দিয়েছিলেন, তা স্থগিত চেয়ে রাষ্ট্রপক্ষ আবেদন করেছিল। আপিল বিভাগ এই আবেদনের ওপর নো অর্ডার দিয়েছেন। অর্থাৎ, কোনো স্থগিতাদেশ দেননি আপিল বিভাগ। ফলে হাইকোর্টের ওই রায় বহাল রইল। হাইকোর্টের পূর্ণাঙ্গ রায় পাওয়া সাপেক্ষে রাষ্ট্রপক্ষ লিভ টু আপিল করলে তা দ্রুত শুনবেন বলে আদালত জানিয়েছেন।

ন্যূনতম বয়সসীমা নির্ধারণকে কেন্দ্র করে মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মানী ভাতা নিয়ে জটিলতার পরিপ্রেক্ষিতে করা পৃথক ১৫টি রিটের চূড়ান্ত শুনানি নিয়ে গত ১৯ মে হাইকোর্ট রায় দিয়েছিলেন।

হাইকোর্টের রায়ে মুক্তিযোদ্ধাদের বয়সসীমা নির্ধারণে পৃথক গেজেট ও পরিপত্র অবৈধ ঘোষণা করা হয়। এসব গেজেট ও পরিপত্র দিয়ে মুক্তিযোদ্ধাদের ন্যূনতম বয়সসীমা সাড়ে ১২ ও ১৩ নির্ধারণ করা হয়েছিল।

হাইকোর্টের এই রায় স্থগিত চেয়ে রাষ্ট্রপক্ষ আপিল বিভাগে আবেদন করে। যা গত ১৯ জুন চেম্বার বিচারপতির আদালতে শুনানির জন্য ওঠে। সেদিন চেম্বার বিচারপতি রায়ে স্থগিতাদেশ না দিয়ে রাষ্ট্রপক্ষের আবেদনটি ২৩ জুন (আজ) আপিল বিভাগের নিয়মিত বেঞ্চে শুনানির জন্য পাঠিয়ে দেন। এ অনুসারে আজ রাষ্ট্রপক্ষের আবেদনের ওপর শুনানি হয়।