ডেঙ্গু : ঈদে যারা বাড়ি যাচ্ছেন তাদের উদ্দেশ্যে অ্যাড. তানজিমের ৮ পরামর্শ

প্রতিবেদক : বার্তা কক্ষ
প্রকাশিত: ৭ আগস্ট, ২০১৯ ১১:৪৩ পূর্বাহ্ণ

প্রতিদিনই বাড়ছে ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা। দেখতে দেখতে প্রায় মহামারির রূপ নিয়েছে এডিস মশাবাহিত রোগ ডেঙ্গুজ্বর। ডেঙ্গু-আক্রান্ত রোগী ও এ রোগে মৃতের সরকারি আর বেসরকারি সংখ্যায় বিস্তর ফারাক। চলতি বছর এ পর্যন্ত মোট ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্তের সংখ্যা সরকারি হিসেবেই ২৭,৪৩৭ জন এবং এর মধ্যে মৃত্যু হয়েছে ১৮ জনের। আর দেশের গণমাধ্যমগুলোর হিসেবে মৃতের সংখ্যা ৮০ ছাড়িয়েছে আর আক্রান্তের সংখ্যা সরকারি হিসেবের কয়েকগুণ বেশি। হাসপাতালগুলো ডেঙ্গু রোগী নিয়ে হিমশিম অবস্থায়। মেয়র-মন্ত্রীদের বক্তব্যে রোগের প্রকোপ কমছে না, শুধু বাড়ছেই। পরিস্থিতি এতটা ভয়াবহরূপ নিয়েছে যে মশা প্রতিরোধে কার্যকর ব্যবস্থা নিতে নির্দেশনা দিয়েছেন খোদ হাইকোর্ট।

যদিও কথার দাপটে এডিস মশা মরবে না। তাই বসবাস করতে হবে মশার সঙ্গেই। অতএব আসন্ন ঈদুল আযহা উপলক্ষে যারা গ্রামের বাড়ি যাচ্ছেন তাদের উদ্দেশ্যে সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী অ্যাডভোকেট তানজিম আল ইসলাম আটটি পরামর্শ দিয়েছেন। যেন ঈদে বাড়ি গেলেও আপনার বাসা ডেঙ্গুর বাহক এডিস মশার অভয়ারণ্য না হয়ে উঠে। গত ৪ আগস্ট এই আইনজীবীর ব্যক্তিগত ফেসবুক অ্যাকাউন্ট থেকে পোস্টকৃত পরামর্শগুলো ল’ইয়ার্স ক্লাব বাংলাদেশ ডটকমের পাঠকদের উদ্দেশ্যে হুবহু তুলে ধরা হল-

ঈদে যারা বাড়ি যাচ্ছেন

  • বাথরুমের কমোড ঢেকে যান। বালতি, বদনা ড্রাম খালি করে উলটো করে রেখে যান। কোথাও যেন পানি জমে না থাকে।
  • টবগুলো এমনভাবে রেখে যান যেন পানি না জমতে পারে।
  • ফ্রিজ খালি করে বন্ধ করে যেতে পারেন অথবা পানি জমার জায়গায় ন্যাপথলিন দিয়ে রাখতে পারেন।
  • রান্না ঘরে, বারান্দায় কোথাও যেন পানি না জমে থাকে খেয়াল করুন।
  • অযথা অব্যবহৃত কাপড়চোপর জমিয়ে না রেখে দান করুন। ঘর পরিস্কার রাখুন। অযথা ফার্নিচার পর্দা এসব কিনে ঘরের ইন্টেরিয়র বাড়ানোর নামে মশাবান্ধব করে তুলবেননা।
  • যাওয়ার আগে ঘরের ফ্লোর, বারান্দা, বাথরুম ব্লিচ দিয়ে পরিষ্কার করে যান। এরোসল ছিটিয়ে যান। ঘরের ঝোল পরিষ্কার করুন।
  • অব্যবহৃত বোতল/কন্টেইনার অযথা রেখে দিবেননা। অপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্র ফেলে দিন নির্দিষ্ট জায়গায়।
  • ঘর যত ফাঁকা রাখতে পারেন ততই ভাল। হাতে টাকা পয়সা জমলেই এইটা সেইটা কিনে ঘর স্তুপ করবেননা। ভাল মানের সুগন্ধি, আতর কিনুন। সুগন্ধী ছিটান।

ঈদে যারা বাড়ি যাচ্ছেন তাদের জন্য :১. বাথরুমের কমোড ঢেকে যান। বালতি, বদনা ড্রাম খালি করে উলটো করে রেখে যান। কোথাও যেন পানি জমে না থাকে।২.টবগুলো এমনভাবে রেখে যান যেন পানি না জমতে পারে।৩. ফ্রিজ খালি করে বন্ধ করে যেতে পারেন অথবা পানি জমার জায়গায় ন্যপথলিন দিয়ে রাখতে পারেন। ৪. রান্না ঘরে,বারান্দায় কোথাও যেন পানি না জমে থাকে খেয়াল করুন।৫. অযথা অব্যবহৃত কাপড়চোপর জমিয়ে না রেখে দান করুন। ঘর পরিস্কার রাখুন। অযথা ফার্নিচার পর্দা এসব কিনে ঘরের ইন্টেরিয়র বাড়ানোর নামে মশাবান্ধব করে তুলবেননা।৬. যাওয়ার আগে ঘরের ফ্লোর বারান্দা বাথরুম ব্লিচ দিয়ে পরিস্কার করে যান।এরোসল ছিটিয়ে যান। ঘরের ময়লা পরিস্কার করুন।৭. অব্যবহৃত বোতল/কন্টেইনার অযথা রেখে দিবেননা। অপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্র ফেলে দিন নির্দিষ্ট জায়গায়।৮.ঘর যত ফাঁকা রাখতে পারেন ততই ভাল। হাতে টাকা পয়সা জমলেই এইটা সেইটা কিনে ঘর স্তুপ করবেননা। ভাল মানের সুগন্ধি, আতর কিনুন। সুগন্ধী ছিটান।(সংগৃহীত)

Posted by Zunaid Ahmed Palak on Tuesday, 6 August 2019

এডিসমুক্ত রাখুন ঘর, রাখার চেষ্টা করুন।

উল্লেখ্য, স্ত্রী ডেঙ্গু আক্রান্তের কারণে ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনকে (ডিএসসিসি) লিগ্যাল নোটিশ পাঠিয়েছিলেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী তানজিম আল ইসলাম। গত ১১ জুলাই ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র এবং প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তাকে ৫০ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ চেয়ে নোটিশ পাঠানো হয়। আইনি (লিগ্যাল) নোটিশ পাওয়ার পর ওই রোগীকে দেখতে ফল নিয়ে অ্যাডভোকেট তানজিমের বাসায় গিয়েছিলেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র সাঈদ খোকন।