‘তিনি ভালো কাজ করেছেন, তাই বলে আইনের লঙ্ঘনের জন্য তিনি দায়বদ্ধ হবেন না?’

প্রতিবেদক : বার্তা কক্ষ
প্রকাশিত: ১৪ মার্চ, ২০২০ ১২:৪৬ পূর্বাহ্ণ
এস. এম. শরিয়ত উল্লাহ্

এস এম শরিয়ত উল্লাহ্‌:

সম্প্রতি মহামান্য হাইকোর্ট বিভাগ মোবাইল কোর্টে শিশুদের বিচার করা অবৈধ এবং একজন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটকে “incompetent” বলে উল্লেখ করেছেন। এ বিষয়ে অনেকেই না জেনে বুঝে লেখালেখি করছে এবং অনেকে উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে বিভিন্ন মাধ্যমে অপপ্রচার চালাচ্ছে।

সাধারণ মানুষের আবেগকে ব্যবহার করে আইন, সংবিধান এবং সর্বোচ্চ আদালতকে অবজ্ঞা করছে তারা। সাধারণ মানুষ বিভ্রান্ত হচ্ছে এসব অপপ্রচারে।

১১২ জন শিশুকে শুধু কথিত স্বীকারোক্তির ভিত্তিতে সাজা দেওয়া হয়েছে। যা শুধু অবৈধ নয়, মানবাধিকার লঙ্ঘন এবং অসাংবিধানিক বটে। অথচ সেই নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এখন জাতির কাছে প্রশ্ন রাখছে যে, “সততার সাথে কাজ করা কি ক্ষমতার অপব্যবহার”?

তিনি অনেক ভালো কাজ করেছেন। তাই বলে এহেন আইনের লঙ্ঘনের জন্য তিনি দায়বদ্ধ হবেন না? হাইকোর্ট তাকে “incompetent” বলেছেন। অথচ বিভিন্ন মিডিয়ায় আসছে হাইকোর্ট তাকে “অপদার্থ” বলেছে।

এভাবে তারা অপপ্রচার চালাচ্ছে। এমনকি শিশুদের অধিকার নিয়ে কাজ করা রিটকারী বিজ্ঞ আইনজীবীদের হত্যার হুমকিসহ বিভিন্নভাবে হুমকি দিচ্ছে কেউ কেউ। যা স্পষ্টতই অপরাধ। সর্বোচ্চ আদালতের রায় নিয়ে না জেনে বা বুঝে কোন প্রকার বিরূপ মন্তব্য না করার জন্য সবাইকে অনুরোধ জানাচ্ছি।

লেখক- সহকারী জজ।