পারিবারিক আদালত কি শুধু মুসলিম সম্প্রদায়ের জন্য, আইন কি বলে?

প্রতিবেদক : বার্তা কক্ষ
প্রকাশিত: ৩ এপ্রিল, ২০২০ ৭:২২ অপরাহ্ণ
মুহাম্মাদ আসাদুল্লাহ্ আল-গালিব

মুহাম্মাদ আসাদুল্লাহ্ আল-গালিব:

বাংলাদেশ একটি অসাম্প্রদায়িক দেশ। হিন্দু, মুসলমান,খৃষ্টান, বৌদ্ধ  সহ নানা ধর্মালম্বী মানুষ এখানে একত্রে বসবাস করে। আমাদের সংবিধানে বলা হয়েছে, আইনের দৃষ্টিতে সকল নাগরিক সমান এবং সমান আইনের আশ্রয় লাভের অধিকারী। আমরা জানি প্রচলিত আইন গুলি সকল ধর্মের মানুষের জন্য সমান ভাবে প্রযোজ্য, এছাড়াও ব্যক্তিগত এবং পারিবারিক বিভিন্ন বিষয় আছে যেগুলো প্রত্যেক ধর্মের অনুসারীদের নিজ নিজ ধর্মীয় আইন অনুসারে প্রয়োগ হয়ে থাকে। একটা উদাহরণ দিলে বিষয়টি পরিষ্কার হবে। এদেশে একজন মুসলমান নাগরিকের জমিজমা যে পদ্ধতিতে বন্টন হয়, ঠিক অনুরুপ পদ্ধতিতে হিন্দুধর্মালম্বীদের জমিজায়গা বন্টন করা হয় না। এক্ষেত্রে তাদের নিজ নিজ ব্যক্তিগত আইন অনুসারে জমিজমা বন্টন করা হয়।

আমরা যদি পারিবারিক আদালত অধ্যাদেশ ১৯৮৫ ‘র দিকে দৃষ্টি দেই তাহলে দেখতে পারবো, ৫ ধারাতে আইনটির এখতিয়ার বিষয়ে উল্লেখ করা হয়েছে। বলা হয়েছে, ১৯৬১ সালের মুসলিম পারিবারিক আইন অধ্যাদেশ এর বিধানাবলী সাপেক্ষে কোন পারিবারিক আদালতের পাঁচটি বিষয়াদির সকল অথবা যেকোনটির সঙ্গে সম্পর্কিত বিষয়ে যেকোন মামলা গ্রহণ, বিচার এবং নিষ্পত্তি করার একক এখতিয়ার থাকবে।বিষয়গুলো হলো:
(ক) বিবাহবিচ্ছেদ
(খ) দাম্পত্য অধিকার পুনরুদ্ধার
(গ) মোহরানা
(ঘ) ভরণপোষণ ও
(ঙ) সন্তান-সন্ততিগণের অভিভাবকত্ব ও তত্ত্বাবধান।

যেহেতু এই আইনের এখতিয়ারের প্রশ্নে মুসলিম পারিবারিক আইন অধ্যাদেশ ১৯৬১ এর বিষয় উল্লেখ করা হয়েছে, ফলে অনেকের মনেই প্রশ্ন জাগতে পারে তাহলে কি পারিবারিক আদালত শুধু মাত্র মুসলমানদের  জন্য? অন্যান্য সম্প্রদায়ের মানুষ কি এই আইনের মাধ্যমে প্রতিকার পেতে পারে না?

যদিও পারিবারিক আদালত অধ্যাদেশ ১৯৮৫ তে সরাসরি উল্লেখ করা হয় নি যে এই আইন শুধু মুসলমানদের জন্য নাকি সকল সম্প্রদায়ের জন্য, তাই আমার উল্লেখিত প্রশ্নের জন্য মহামান্য আদালতে রায়ের দিকে দৃষ্টি দিবো।

Krishnapada Talukder Vs Geetasree Talukder [14 (1994) BLD 415] মামলায় আদালত মত প্রকাশ করেছিলেন যে, শুধুমাত্র মুসলমান এই আইনের মাধ্যমে প্রতিকার পেতে পারে।

কিস্তু Nirmal Kanti Das Vs Sreemati Biva Rani [14 (1994) BLD (HCD) 413] মামলায় আদালত ভিন্ন মত প্রকাশ করে বলেন, পারিবারিক আদালত অধ্যাদেশ এর আওতায় একজন হিন্দু মহিলাকে তার স্বামীর বিরুদ্ধে ভরণপোষণের মামলা করতে বিরত রাখবেনা।
Meher Nigar Vs Md Mujibur Rahman [14 (1994) BLD (HCD) 467] মামলায় আদালত বলেন, পারিবারিক আদালত অধ্যাদেশ শুধুমাত্র মুসলমানদের জন্য নয় বরং বাংলাদেশে বসবাসকারী অন্যান্য সম্প্রদায়ের জন্য প্রযোজ্য হবে।

Pochon Rikssi Das Vs Khuku Rani Dasi and others [50 (1998) DLR (AD) 47]
মামলায় রায়ে বলা হয়েছে, পারিবারিক আদালত অধ্যাদেশ ‘র আওতায় শুধুমাত্র ধর্মীয় বিশ্বাসের কারণে  কোন অধিকারকে খর্ব করবে না। মূলত এই মামলার মাধ্যমে সকল জট পরিষ্কার হয়েছে।

অর্থাৎ আমরা দেখতে পাচ্ছি পারিবারিক আদালত অধ্যাদেশ ১৯৮৫ সকল সম্প্রদায়ের জন্য প্রযোজ্য। উদাহরনস্বরুপ – একজন মুসলিম নারী তার সন্তানের তত্ত্বাবধান বা ভরণপোষণ  নিয়ে যেমন মামলা দায়ের করতে পারে, তেমনি একজন হিন্দুধর্মালম্বী নারীও পারে। শুধু মাত্র ধর্মের কারণে এই আইন প্রয়োগে কোন বাঁধা নেই, দেশে সকল নাগরিক মুসলিম,হিন্দু সবাই এই আইন থেকে প্রতিকার লাভের অধিকারী।

আমরা জানি The Hindu Married Women’s Right to Separate Residence and Maintenance Act 1946 নামে একটি আইন আছে, কিন্তু দেখা যাচ্ছে যে, পারিবারিক আদালত অধ্যাদেশ দ্বারাই হিন্দুধর্মালম্বী প্রতিকার পেতে পারে এবং Jibon Sharma vs. Sree Subasini Sharma and others – 2010 মামলায় আমরা তার প্রতিফলন দেখতে পাই।

পরিশেষে, এটা এখন পরিষ্কার যে, পারিবারিক আদালত হিন্দু-মুসলিম আপামর সকল সম্প্রদায়ের জন্যই।

লেখক- শিক্ষানবিশ আইনজীবী, ঢাকা জজ কোর্ট।
ghalibhit@gmail.com