শিশু চুরি করে ভিক্ষাবৃত্তি: ঢাকার আদালত প্রাঙ্গণ থেকে নারী আটক

প্রতিবেদক : বার্তা কক্ষ
প্রকাশিত: ২০ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ৮:৪৩ অপরাহ্ণ
আটক মিনা

দেড় বছরের অবুঝ শিশু চুরি করে এনে ভিক্ষাবৃত্তি চালানো এক নারীকে গ্রেফতার করেছে ঢাকা আইনজীবী সমিতির টাউট উচ্ছেদ কমিটি। আটক নারীর নাম মিনা (৬০)। তার বাড়ি ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নাসিরনগর থানায়।

আজ রোববার (২০ সেপ্টেম্বর) দুপুর সোয়া ৩টার দিকে ঢাকার আদালত প্রাঙ্গণ থেকে ওই নারীকে আটক করা হয়।

ঢাকা আইনজীবী সমিতির দপ্তর সম্পাদক অ্যাডভোকেট এইচ এম মাসুম ল’ইয়ার্স ক্লাব বাংলাদেশ ডটকমকে আটকের তথ্য নিশ্চিত করে জানান, সমিতির পক্ষ থেকে মামলা দায়ের করে ওই নারীকে পুলিশে সোপর্দ করা হয়েছে।

মামলার এজাহার থেকে জানা যায়, রোববার (আজ) দুপুরে সোয়া ৩টার দিকে সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ছগির হোসেন মামলার শুনানি শেষে ঢাকা আইনজীবী সমিতি সংলগ্ন মসজিদের সামনে দিয়ে হেঁটে যাচ্ছিলেন। এ সময় দুই চাকা বিশিষ্ট হুইল চেয়ারে আনুমানিক দেড় বছরের একটি বাচ্চা শোয়া অবস্থায় কান্নাকাটি করছে। তখন অ্যাডভোকেট ছগির ১০টাকা ভিক্ষা দিয়ে বাচ্চার অভিভাবককে আশে পাশে খুঁজতে থাকেন। এ সময় মিনা নামের ঐ বৃদ্ধা এসে নিজেকে বাচ্চাটির মা দাবি করেন। কিন্তু মিনার বয়স বিবেচনায় দেড় বছরের শিশুর মা হওয়ার বিষয়টি ওই আইনজীবীর মনে সন্দেহ সৃষ্টি করে। এরপর অ্যাডভোকেট ছগির বাচ্চার সম্পর্কে আরও কিছু তথ্য জানতে চাইলে ঐ নারী একেক সময় একেক ধরণের অসংলগ্ন কথা বলতে থাকেন।

ঠিক সেই মূহুর্তে সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী শারমিন সুলতানা হ্যাপীসহ অন্যান্য আইনজীবী ও আশেপাশের লোকজন এগিয়ে আসেন। পরে ওই নারী স্বীকার করেন, আলমগীর নামের এক ব্যক্তি ভিক্ষা করার জন্য বাচ্চাটিকে তার কাছে দিয়েছে। সংঘবদ্ধ অপরাধ চক্রের সক্রিয় সদস্য মিনা দিনের পর দিন একেক সময় একেক বাচ্চা চুরি করে এনে ভিক্ষা বৃত্তির মাধ্যমে অবৈধ উপায়ে টাকা উপার্জনসহ অবুঝ শিশুদের বিভিন্ন অপরাধমূলক কর্মকাণ্ড করতে বাধ্য করে আসছে।

এ ঘটনায় ঢাকা আইনজীবী সমিতির টাউট উচ্ছেদ কমিটির আহ্বায়ক ও সমিতির সাধারণ সম্পাদকের নির্দেশে অ্যাডভোকেট শারমিন সুলতানা বাদী হয়ে ওই নারীর বিরুদ্ধে কোতোয়ালি থানায় মামলা দায়ের করেন।