অ্যাডভোকেটশিপ পরীক্ষার ফরম পূরণ অনলাইনে, সময় এক মাস

প্রতিবেদক : ল'ইয়ার্স ক্লাব বাংলাদেশ
প্রকাশিত: ৩ মার্চ, ২০২২ ২:৪৫ অপরাহ্ণ
বাংলাদেশ বার কাউন্সিল

বাংলাদেশ বার কাউন্সিলের আইনজীবী তালিকাভুক্তির পরীক্ষার ফরম পূরণের সময়সূচী প্রকাশ করা হয়েছে। আগামী ২৭ মার্চ থেকে ২৭ এপ্রিল পর্যন্ত প্রিলিমিনারি (এমসিকিউ) পরীক্ষার ফরম পূরণ কার্যক্রম চলবে। এই সময়ের মধ্যে প্রার্থীদের অনলাইনে ফরম পূরণ করতে হবে।

বার কাউন্সিলের এনরোলমেন্ট কমিটির নির্দেশে আজ বৃহস্পতিবার (৩ মার্চ) এ সংক্রান্ত জারি করা বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

সংস্থার সচিব সিনিয়র জেলা ও দায়রা জজ মো. রফিকুল ইসলাম স্বাক্ষরিত বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ‘এতদ্বারা সংশ্লিষ্ট সকলের অবগতির জন্য জানানো যাইতেছে যে, বাংলাদেশ বার কাউন্সিলের অ্যাডভোকেট তালিকাভুক্তির পরবর্তী এমসিকিউ পরীক্ষার অনলাইন ফরম পূরণ কার্যক্রম আগামী ২৭-০৩-২০২২ ইং তারিখ হইতে ২৭-০৪-২০২২ ইং তারিখ পর্যন্ত চলিবে।’

‘এনরোলমেন্ট এমসিকিউ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হইবে আগামী জুন, ২০২২ ইং এর দ্বিতীয় সপ্তাহে। তৎপরবর্তী এনরোলমেন্ট লিখিত পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হইবে জুলাই, ২০২২ এর চতুর্থ সপ্তাহে।’

‘পরীক্ষার অনলাইন ফরম পূরণ এবং এই সংক্রান্ত বিস্তারিত অন্যান্য তথ্য যথাসময়ে বাংলাদেশ বার কাউন্সিলের অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে (www.barcouncil.gov.bd) প্রকাশ করা হইবে।’

‘উল্লেখ্য, পরীক্ষা গ্রহণের সম্ভাব্য তারিখসমূহ অনিবার্য যেকোনো পরিস্থিতিতে পরিবর্তন করার এখতিয়ার কর্তৃপক্ষ সংরক্ষণ করেন।’

নিয়মানুযায়ী, আইন বিষয়ে স্নাতক (এলএলবি) পাসের পর একজন প্রার্থী সিনিয়র আইনজীবীর সঙ্গে বার কাউন্সিলের নির্ধারিত ফরমে ইন্টিমেশন (সদস্যপদের আবেদন) পেপার জমা দেন। এরপর শিক্ষানবিশ হিসেবে ছয় মাস পার হলে বার কাউন্সিল ওই প্রার্থীকে রেজিস্ট্রেশন ফরম দেয়।

এনরোলমেন্ট (আইনজীবীদের তালিকাভুক্তি) পরীক্ষায় অংশ নেওয়ার জন্য প্রাথমিক যোগ্যতা এ রেজিস্ট্রেশন। এরপর পরীক্ষার জন্য বার কাউন্সিল সময়সূচি ঘোষণা করলে প্রার্থীরা নির্ধারিত ফরমপূরণ করে পরীক্ষায় অংশ নেওয়ার আবেদন করেন।

এক ঘণ্টার এমসিকিউ পরীক্ষায় ১০০ নম্বরের মধ্যে ন্যূনতম ৫০ নম্বর পেলে লিখিত পরীক্ষায় পরপর দুবার অংশগ্রহণের যোগ্যতা অর্জন করেন একজন প্রার্থী। আইনজীবী হিসেবে এনরোলমেন্ট হওয়ার জন্য এমসিকিউ (নৈর্ব্যক্তিক প্রশ্ন) উত্তীর্ণ হওয়ার পরে নিয়মানুাযায়ী লিখিত পরীক্ষায় অংশ নিতে হয়। লিখিত পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হওয়ার পর মৌখিক পরীক্ষার মাধ্যমে চূড়ান্তভাবে উত্তীর্ণরা সংশ্লিষ্ট জেলা আদালতে আইনজীবী হিসেবে কাজ করতে বার কাউন্সিলের সনদ পান।