হত্যা মামলায় কক্সবাজার আদালতে সাক্ষ্য দিলেন মৎস্য সচিব ইয়ামিন চৌধুরী

প্রতিবেদক : ল'ইয়ার্স ক্লাব বাংলাদেশ
প্রকাশিত: ৭ জুলাই, ২০২২ ১১:১৪ পূর্বাহ্ণ
কক্সবাজার জেলা ও দায়রা জজ আদালতে সাক্ষ্য দিয়ে আদালত থেকে বেরিয়ে আসছেন সচিব ড. মুহাম্মদ ইয়ামিন চৌধুরী। সাথে পিপি অ্যাডভোকেট ফরিদুল আলম।

মুহাম্মদ আবু সিদ্দিক ওসমানী : কক্সবাজারের চকরিয়ার একটি হত্যা মামলায় সাক্ষ্য দিয়েছেন মৎস্য ও প্রাণী সম্পদ মন্ত্রণালয়ের সচিব ড. মুহাম্মদ ইয়ামিন চৌধুরী।

কক্সবাজারের সিনিয়র জেলা ও দায়রা জজ মোহাম্মদ ইসমাইল এর আদালতে বুধবার (৬ জুলাই) তিনি এ সাক্ষ্য ও আসামী পক্ষে জেরার জবাব দেন।

২০০৪ সাল থেকে ২০০৬ সাল পর্যন্ত মৎস্য ও প্রাণী সম্পদ মন্ত্রণালয়ের সচিব ড. মুহাম্মদ ইয়ামিন চৌধুরী কক্সবাজারের চকরিয়ার উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) এবং চকরিয়ার উপজেলা ম্যাজিস্ট্রেট হিসাবে দায়িত্ব পালন করেছেন।

কক্সবাজার অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালতের অতিরিক্ত পিপি অ্যাডভোকেট সুলতানুল আলম জানান, মৎস্য ও প্রাণী সম্পদ মন্ত্রণালয়ের সচিব ড. মুহাম্মদ ইয়ামিন চৌধুরী চকরিয়ার উপজেলা ম্যাজিস্ট্রেটের দায়িত্ব পালনকালে ২০০৫ সালের ২৬ আগস্ট রাত দেড়টার দিকে চকরিয়ার কোনাখালী ইউনিয়নের মরংঘোনা এলাকার মোজাহের মিয়ার পুত্র আলমগীর খুন হন।

এ ঘটনায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করা হয়। যার চকরিয়া থানা মামলা নম্বর : ০৯/২০০৫ ইংরেজি, জিআর মামলা নম্বর : ৮৯/২০০৫ ইংরেজি (চকরিয়া) এবং এসটি মামলা নম্বর : ৩০৭/২০০৬ ইংরেজি।

এই হত্যা মামলায় এজাহার বর্হিভুত আসামী একই এলাকার গুরা মিয়ার পুত্র কামালকে ২০০৬ সালের ২৮ সেপ্টেম্বর গ্রেপ্তার করা হয়। গ্রেপ্তার হওয়া আসামী কামাল নিজেকে হত্যাকান্ডের সাথে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে তৎকালীন চকরিয়া উপজেলা ম্যাজিস্ট্রেট মুহাম্মদ ইয়ামিন চৌধুরীর আদালতে ফৌজদারি কার্যবিধির ১৬৪ ধারায় আত্মস্বীকারোক্তি মূলক জবানবন্দী প্রদান করেন।

সেই সময়কার উপজেলা ম্যাজিস্ট্রেট মুহাম্মদ ইয়ামিন চৌধুরী ১৭ বছর আগের হত্যা মামলায় বুধবার আদালতে এসে উপজেলা ম্যাজিস্ট্রেট হিসাবে আসামী কামালের জবানবন্দি গ্রহণের বিষয়ে সাক্ষ্য প্রদান ও আসামীর পক্ষে জেরার জবাব দেন।

মৎস্য ও প্রাণী সম্পদ সচিব ড. মুহাম্মদ ইয়ামিন চৌধুরী থেকে আদালতে সাক্ষ্য গ্রহণ করেন কক্সবাজার জেলা ও দায়রা জজ আদালতের পিপি অ্যাডভোকেট ফরিদুল আলম। এসময় তাঁকে সহায়তা করেন অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালতের অতিরিক্ত পিপি অ্যাডভোকেট সুলতানুল আলম। অপরদিকে, আসামী পক্ষে সচিব ড. মুহাম্মদ ইয়ামিন চৌধুরীকে জেরা করেন অ্যাডভোকেট নুরুল মোস্তফা মানিক।

মূলত এ মামলাটি কক্সবাজারের অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালতে বিচার কার্যক্রম চলছে। অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বেঞ্চ সহকারী দেলোয়ার হোসাইন জানান, কক্সবাজারের অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আবদুল্লাহ আল মামুন ভিন্ন মামলায় সাক্ষ্য দিতে বুধবার বান্দরবান জেলায় অবস্থান করায় কক্সবাজারের সিনিয়র জেলা ও দায়রা জজ মোহাম্মদ ইসমাইল এর আদালতে উক্ত মামলায় সচিব ড. মুহাম্মদ ইয়ামিন চৌধুরীর সাক্ষ্য গ্রহণ করা হয়।

প্রসঙ্গত, মৎস্য ও প্রাণী সম্পদ সচিব ড. মুহাম্মদ ইয়ামিন চৌধুরী ২ দিনের সফরে বুধবার ৬ জুলাই সকাল ৯ টায় বিমানযোগে কক্সবাজার আসেন। এদিন সকাল ১১ টায় তিনি কক্সবাজারের জেলা ও দায়রা জজ আদালতে সাক্ষ্য দেওয়া ছাড়াও কক্সবাজারে তিনি ২ দিনের বিভিন্ন পূর্ব নির্ধারিত কর্মসূচীতে অংশ নেন।