বিচারপতি নিয়োগে বিধিমালা প্রণয়নে আইনজীবী ঐক্যফ্রন্টের মানববন্ধন কাল

প্রতিবেদক : বার্তা কক্ষ
প্রকাশিত: ২৭ আগস্ট, ২০১৯ ১:০৮ অপরাহ্ণ
জাতীয় আইনজীবী ঐক্যফ্রন্ট আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলন

সংবিধান অনুসারে বিচারপতি নিয়োগে বিধিমালা প্রণয়নের দাবিতে মানববন্ধন কর্মসূচির ডাক দিয়েছে জাতীয় আইনজীবী ঐক্যফ্রন্ট। আগামীকাল বৃহস্পতিবার (২৯ আগস্ট) সুপ্রিম কোর্টসহ সারা দেশের জেলা আইনজীবী সমিতিতে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করা হবে।

সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির মিলনায়তনে গতকাল সোমবার (২৬ আগস্ট) জাতীয় আইনজীবী ঐক্যফ্রন্ট আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে দলটির আহ্বায়ক ও বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট জয়নুল আবেদীন এ মানববন্ধন কর্মসূচির ঘোষণা দেন।

সংবাদ সম্মেলনে জয়নুল আবেদীন বলেন, বিচার বিভাগের দুর্নীতি ও স্বজনপ্রীতি দূর করা এবং সংবিধান অনুসারে বিচারপতি নিয়োগে বিধিমালা প্রণয়নের দাবিতে ২৯ আগস্ট বেলা সোয়া একটায় সুপ্রিম কোর্টসহ সারা দেশের জেলা আইনজীবী সমিতিতে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করা হবে।

সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি ও বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট জয়নুল আবেদীন বলেন, ‘সম্প্রতি তিনজন বিচারপতিকে বিচারকাজ থেকে সাময়িকভাবে স্থগিত করা হয়েছে। তাঁদের বিরুদ্ধে কী অভিযোগ, তা এখনো পরিষ্কার নয়।’

জাতীয় আইনজীবী ঐক্যফ্রন্ট নির্দিষ্ট কোনো রাজনৈতিক দলের সংগঠন নয় উল্লেখ করে বিএনপির এই ভাইস চেয়ারম্যান বলেন, ‘আমরা চাই বিচার বিভাগ দুর্নীতিমুক্ত হোক। বিচারপতি নিয়োগে একটি সুনির্দিষ্ট নীতিমালা তৈরি করে নিয়োগ প্রদান করা হোক। এ বিষয়ে আইনজীবী সমিতি ও জ্যেষ্ঠ আইনজীবীরা সরকারকে বারবার তাগাদা দিয়েছেন। কিন্তু সরকার ওই দাবিকে পাশ কাটিয়ে রাজনৈতিক বিবেচনায় বিচারক নিয়োগ প্রদান করে। তাই জাতীয় আইনজীবী ঐক্যফ্রন্ট থেকে আমাদের জোর দাবি, দেশের সর্বোচ্চ আদালতে বিচারক নিয়োগে বিধিমালা তৈরি করে নিয়োগ করা একান্ত প্রয়োজন।’

প্রসঙ্গত, গত ২২ আগস্ট (বৃহস্পতিবার) নিজ কার্যালয়ে হাইকোর্ট বিভাগের স্পেশাল অফিসার মোহাম্মদ সাইফুর রহমান বলেন, তিনজন বিচারপতির বিরুদ্ধে প্রাথমিক অনুসন্ধানের পরিপ্রেক্ষিতে রাষ্ট্রপতির সঙ্গে পরামর্শক্রমে তাদের বিচারকাজ থেকে বিরত রাখার সিদ্ধান্তের কথা অবহিত করা হয় এবং পরবর্তীতে তারা ছুটির প্রার্থনা করেন।

এ বিষয়ে পরবর্তী পদক্ষেপ নিয়ে ওইদিন অ্যাটর্নি জেনারেল বলেছিলেন, সেটা অভিযোগ কি, এ সম্বন্ধে অনুসন্ধান করে কি পদক্ষেপ নেওয়া দরকার তা রাষ্ট্রপতি আশা করি সিদ্ধান্ত নেবেন।

সূত্রমতে এ তিন বিচারপতি হলেন, বিচারপতি সালমা মাসুদ চৌধুরী, বিচারপতি কাজী রেজা-উল হক ও বিচারপতি এ কে এম জহিরুল হক।