ভ্যাট নিবন্ধন ছাড়াই ক্রেতাদের কাছ থেকে ভ্যাট আদায়, ৩৭ লাখ জরিমানা

প্রতিবেদক : বার্তা কক্ষ
প্রকাশিত: ১৮ জুন, ২০২১ ১২:৩৪ অপরাহ্ণ

রাজধানীর বনানীর কামাল আতাতুর্ক রোডে অবস্থিত টেপটেলস রেস্টুরেন্ট এ বছর জানুয়ারি মাসে ব্যবসা শুরু করলেও জুন পর্যন্ত তাদের ভ্যাট নিবন্ধন ছিল না। অথচ নিবন্ধন ছাড়াই এত দিন তারা ক্রেতাদের কাছ থেকে ১৫ শতাংশ হারে ভ্যাট আদায় করে আসছিল।

গত মঙ্গলবার ভ্যাট গোয়েন্দা অধিদপ্তর টেপটেলস রেস্টুরেন্টে অভিযান চালিয়ে ভ্যাট ফাঁকির দায়ে সুদসহ ৩৬ লাখ ৯৯ হাজার ২১০ টাকা জরিমানা এবং মামলা করেছে।

ভ্যাট গোয়েন্দা অধিদপ্তর এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানায়, একজন ক্রেতা টেপটেলস রেস্টুরেন্টে খাবার খেয়ে বিল দিতে গিয়ে ভ্যাট চালান চান। কিন্তু রেস্টুরেন্টটি পিওএস মেশিনের মাধ্যমে ভ্যাট নিবন্ধনবিহীন চালান দেওয়ায় তিনি ভ্যাট গোয়েন্দা অধিদপ্তরে অভিযোগ করেন। অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে সহকারী পরিচালক মুনাওয়ার মুরসালীনের নেতৃত্বে অভিযান চালায় ভ্যাট গোয়েন্দা অধিদপ্তর।

ভ্যাট গোয়েন্দারা সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানান, টেপটেলস প্রতিটি খাবারের বিলে ‘ভ্যাট রেজিস্ট্রেশন আবেদন করা হয়েছে’ উল্লেখ করেছে। এ সময়ের মধ্যে তারা গ্রাহকদের কাছ থেকে ১৫ শতাংশ হারে ভ্যাট আদায় করে, যা সরকারি কোষাগারে জমা হয়নি।

প্রতিষ্ঠানটি থেকে প্রাপ্ত তথ্য অনুসারে, এ বছর জানুয়ারি থেকে ১৫ জুন পর্যন্ত টেপটেলসের ভ্যাট আরোপযোগ্য পণ্যের বিক্রয়মূল্য ছিল ২ কোটি ৩২ লাখ ৬৩ হাজার টাকা, যার ওপর প্রযোজ্য ভ্যাট ৩৪ লাখ ৮৯ হাজার টাকা। যথাসময়ে ভ্যাট পরিশোধ না করায় ভ্যাট আইন অনুযায়ী মাসিক ২ শতাংশ হারে সুদ (২ লাখ ৯ হাজার টাকা) আরোপ করে জরিমানা করা হয়েছে টেপটেলসকে।

বিদ্যমান ভ্যাট আইন অনুসারে, যেকোনো ভ্যাটযোগ্য ব্যবসা শুরুর আগেই যথাযথভাবে ভ্যাট নিবন্ধন নিতে হবে। পাশাপাশি ৬.৩ নম্বর ফরমে ক্রেতাদের ভ্যাট চালান দিতে হবে। একই সঙ্গে, পরবর্তী মাসের ১৫ তারিখের মধ্যে স্থানীয় ভ্যাট কার্যালয়ে রিটার্নের মাধ্যমে ক্রেতাদের কাছ থেকে সংগৃহীত ভ্যাট সরকারি কোষাগারে জমা দেওয়ার বাধ্যবাধকতা রয়েছে।

ভ্যাট গোয়েন্দাদের পক্ষ থেকে জানানো হয়, অভিযান চলা পর্যন্ত টেপটেলসের নিবন্ধন ছিল না।