এক লাখ ইয়াবা পাচার : কক্সবাজারে পাঁচ ভাইয়ের ২০ বছর করে কারাদন্ড

প্রতিবেদক : ল'ইয়ার্স ক্লাব বাংলাদেশ
প্রকাশিত: ৩ সেপ্টেম্বর, ২০২২ ১২:৪৬ অপরাহ্ণ
অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালত, কক্সবাজার

মুহাম্মদ আবু সিদ্দিক ওসমানী : এক লক্ষ ইয়াবা পাচারের মামলায় ৫ ভাইকে ২০ বছর করে সশ্রম কারাদন্ড দেওয়া হয়েছে। একইসাথে প্রত্যেককে এক লক্ষ ২০ হাজার টাকা করে অর্থদন্ড, অর্থদন্ড অনাদয়ে আরো এক বছর ২ মাস করে বিনাশ্রম কারাদন্ড দেওয়া হয়েছে।

কক্সবাজারের অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আবদুল্লাহ আল মামুন গত ৩০ আগস্ট এ রায় ঘোষণা করেন।

কক্সবাজার অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বেঞ্চ সহকারী দেলোয়ার হোসেন ল’ইয়ার্স ক্লাব বাংলাদেশ ডটকম-কে এ তথ্য জানিয়েছেন।

দন্ডিত আসামীরা হলেন- কক্সবাজারের টেকনাফ উপজেলার সেন্টমার্টিন দ্বীপের পশ্চিম পাড়ার আবদুল হকের ৫ পুত্র যথাক্রমে মোঃ ইলিয়াছ (৫০), মোঃ সিরাজ (৪৮), মোঃ আবদুর রউফ মেম্বার (৩৮), মোঃ আবু বকর মেম্বার (৩৫) এবং মোঃ আইয়াছ (৩২)।

রায় ঘোষণার সময় দন্ডিত আসামী মোঃ আবুদুর রউফ মেম্বার আদালতে উপস্থিত ছিলেন এবং বাকী ৪ জন পলাতক রয়েছে।

রাষ্ট্র পক্ষে মামলাটি পরিচালনা করেন অতিরিক্ত পিপি অ্যাডভোকেট মোজাফফর আহমদ হেলালী।

মামলার সংক্ষিপ্ত বিবরণ

২০১৮ সালের ১৪ মার্চ সন্ধ্যা ৬ টা ৫০ মিনিটের দিকে কোস্ট গার্ডের টেকনাফস্থ কেরুনতলী স্টেশনের একটি টিম সেন্টমার্টিনের পশ্চিম পাড়া এলাকায় আসামিদের ফেলে দেওয়া অবস্থায় এক লক্ষ ইয়াবা উদ্ধার করে।

এ ঘটনায় কোস্ট গার্ডের পোর্ট অফিসার (মেডিকেল) এম.এ মালেক বাদী হয়ে ১৯৯০ সালের মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনের ১৯(১) এর ৯(খ) ধারায় ধৃত ৫ জনকে আসামী করে টেকনাফ মডেল থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। যার টেকনাফ থানা মামলা নম্বর : ২৫/২০১৮ ইংরেজি, জিআর মামলা নম্বর : ১১৪/২০১৮ ইংরেজি (টেকনাফ) এবং এসটি মামলা নম্বর ১৮৩৩/২০১৮ ইংরেজি।

বিচার ও রায়

মামলাটির তদন্তকারী কর্মকর্তা (আইও), টেকনাফ থানার এসআই ওসমান গণি আদালতে চার্জশীট দিলে মামলাটি বিচারের জন্য ২০২০ সালের ২৮ সেপ্টেম্বর কক্সবাজারের অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালতে চার্জ (অভিযোগ) গঠন করা হয়।

মামলায় সাক্ষীদের সাক্ষ্য গ্রহণ, আসামী পক্ষে সাক্ষীদের জেরা, আলামত প্রদর্শন, রাসায়নিক পরীক্ষা পর্যালোচনা, যুক্তিতর্ক সহ বিচারের সকল প্রক্রিয়া সম্পন্ন করে বিচারক আবদুল্লাহ আল মামুন আসামীদের ১৯৯০ সালের মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনের ১৯(১) এর ৯(খ)/২৫ ধারায় দোষী সাব্যস্থ করে একই আইনের ৯(খ) ধারায় গত ৩০ আগস্ট ৫ ভাইকে ১৫ বছর করে সশ্রম কারাদন্ড দিয়ছেন। বিচারক রায়ে একইসাথে ১৯(৪) ধারায় প্রত্যেককে এক লক্ষ টাকা করে অর্থদন্ড, অর্থদন্ড অনাদয়ে আরো এক বছর করে বিনাশ্রম কারাদন্ড দেওয়া দিয়েছেন।

এছাড়া একই আইনের ১৯(১) এর ২৫ ধারায় উল্লেখিত প্রত্যেক আসামীকে পৃথক আরো ৫ বছর করে সশ্রম কারাদন্ড এবং ২০ হাজার টাকা অর্থদন্ড, অর্থদন্ড অনাদায়ে ২ মাস বিনাশ্রম কারাদন্ড প্রদান করা হয়েছে। ১৯(১) এর ৯(খ) ধারার শাস্তি শেষ হওয়ার পর ১৯(১) এর ২৫ ধারায় প্রদত্ত শাস্তি শুরু হবে বলে রায়ে উল্লেখ করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, দন্ডিত আসামী মোঃ আবদুর রউফ মেম্বারকে কক্সবাজারের সিনিয়র জেলা ও দায়রা জজ সম্প্রতি ভিন্ন একটা মামলায় ১০ বছর কারাদন্ড দিয়েছেন।