জেসাপ মুটকোর্ট কম্পিটিশন বাংলাদেশ এর উদ্বোধনী অধিবেশন অনুষ্ঠিত

প্রতিবেদক : বার্তা কক্ষ
প্রকাশিত: ২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ৩:৩৪ অপরাহ্ণ
উদ্বোধনী অধিবেশন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য দিচ্ছেন এটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম

রায়হান রহমান রাফিদ :

ফিলিপসি. জেসাপ ইন্টারন্যাশনাল ল মুটকোর্ট কম্পিটিশন ২০১৯ এর ‘৩য় বাংলাদেশ কোয়ালিফাইয়িং রাউণ্ড’ এর উদ্বোধনী অধিবেশন অনুষ্ঠিত হয়েছে। গত বৃহস্পতিবার (২১ ফেব্রুয়ারি) হোটেল আমারি ঢাকায় বাংলাদেশের এটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম প্রতিযোগিতার উদ্বোধন ঘোষণা করেন।

‘ফিলিপসি. জেসাপ ইন্টারন্যাশনাল ল মুটকোর্ট কম্পিটিশন’ আইনের শিক্ষার্থীদের মধ্যে সবচেয়ে বিখ্যাত প্রতিযোগিতা যেখানে আন্তর্জাতিক পর্যায়ে প্রায় ১০০টিরও অধিক দেশের আইনের শিক্ষার্থীরা একত্রিত হয়।

জেসাপ বাংলাদেশ কম্পিটিশন সেই আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতার জাতীয় পর্যায়। এই নিয়ে তৃতীয় বারের মত বাংলাদেশ জাতীয় পর্যায়ে প্রতিযোগিতাটি অনুষ্ঠিত করতে যাচ্ছে।

ইন্টারন্যাশনাল ল স্টুডেন্টস অ্যাসোসিয়েশন বাংলাদেশ যথাক্রমে অফিস অব ওভারসিজ প্রসিকিউটোরিয়াল ডেভেলপমেন্ট অ্যাসিস্টেন্স অ্যান্ড ট্রেইনিং (OPDAT), ইউ. এস. ডিপার্টমেন্ট অব জাস্টিস (DOJ), তীর-সিটি গ্রুপ, ইন্ডিপেন্ডেন্ট ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশ, বাংলাদেশ চ্যাপ্টার অব এশিয়ান সোসাইটি অফ দ্য ইন্টারন্যাশনাল ল, (AsianSIL Bangladesh) বাংলাদেশের সহযোগিতায় আয়োজন করতে যাচ্ছে সবচেয়ে সম্মানজনক এ মুটকোর্ট প্রতিযোগিতা।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে মহান ভাষা আন্দোলনের ইতিহাস স্মৃতিচারণ করে এটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম বলেন, “আমাদের পূর্বপুরুষেরা আমাদের ভাষার জন্য তাদের জীবন দান করেছেন। আমরা অন্যান্য ভাষার বিরুদ্ধে নই কিন্তু আমাদের ভাষার জন্য আত্মত্যাগ পৃথিবীর ইতিহাসে অনন্য।”

প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণকারীদের তিনি আইন পেশার দক্ষতা অর্জনের ব্যাপারে বিভিন্ন দিক নির্দেশনা দেন। তিনি আইনজীবীদের উপস্থাপনকে শিল্পের সাথে তুলনা করেন।

সিটি গ্রুপের মার্কেটিং ম্যানেজার, মোঃ ফারজানুল হক তার বক্তব্যে উল্লেখ করেন যে, “বিশ্বের সবচেয়ে সম্মানজনক মুটকোর্ট প্রতিযোগিতার অংশ হতে পেরে আমরা অত্যন্ত আনন্দিত। সিটিগ্রুপ এধরনের কর্মকাণ্ডে সবসময়ই সহযোগিতা করে থাকে।”

তিনি আরো বলেন, “বাংলাদেশের শিক্ষার্থীরা অত্যন্ত সম্ভবনাময়ী এবং এরকম শিক্ষার্থীদের আমরা সবসময়ই সহযোগিতা করে যাব।”

দেশের জন্য সর্বোচ্চ সম্মান বয়ে আনার ব্যাপারে আশাবাদ ব্যক্ত করে তিনি প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণকারী প্রতিটি দলকে শুভকামনা জানান।

বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী এবং জেসাপ বাংলাদেশ ন্যাশনাল রাউন্ড ২০১৯ এর ন্যাশনাল অ্যাডমিনিস্ট্রেটর এ এস এম সায়েম আলী পাঠান তার বক্তব্যের শুরুতেই ভাষাশহীদদের স্মরণ করেন। তিনি প্রতিযোগিতার বিষয়ে বলেন, ‘বাংলাদেশে সারাবিশ্বের মধ্যে জেসাপ প্রতিযোগিতার পঞ্চম বৃহত্তর কোয়ালিফাইয়িং রাউন্ড অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে’। তিনি সবাইকে ন্যাশনাল রাউন্ডের শুভেচ্ছা জানান।

ইন্ডিপেন্ডেন্ট ইউনিভার্সিটির আইন বিভাগের উপদেষ্টা ও AsianSIL Bangladesh এর সভাপতি প্রফেসর বোরহান উদ্দিন খান তার বক্তব্যের শুরুতেই প্রতিযোগিতার সূচনা ও ক্রম বিকাশ নিয়ে সংক্ষেপে বলেন, কীভাবে ১৯৬০ সালে হার্ভার্ড ইউনিভার্সিটিতে এই সম্প্রীতি ভাবাপন্ন প্রতিযোগিতার শুরু হয়েছিল যা আজও বর্তমান। তিনি জেসাপ অভিযানে বাংলাদেশের শুরু এবং অতীতে মুখোমুখি হওয়া সকল প্রতিকূলতার কথাও বর্ণনা করেন।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের অধ্যাপক প্রফেসর নাজমুজ্জামান ভূঁইয়ার উপস্থাপনায় অনুষ্ঠানে ঢাকাস্থ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র দূতাবাসের OPDAT, ইউ.এস. ডিপার্টমেন্ট অফ জাস্টিসের স্থায়ী আইন উপদেষ্টা এরিক উপাঙ্গা অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।