লক্ষ্মীপুর আদালত চত্বরে আসামিদের ওপর আইনজীবীদের হামলা

প্রতিবেদক : ল'ইয়ার্স ক্লাব বাংলাদেশ
প্রকাশিত: ৮ আগস্ট, ২০২২ ৩:২৬ অপরাহ্ণ
হামলার শিকার আহত আসামিরা (ইনসেটে)

লক্ষ্মীপুরের আদালত প্রাঙ্গণে চার আসামিকে মারধরের অভিযোগ উঠেছে আইনজীবীদের বিরুদ্ধে। হামলার শিকার আহত আসামিরা একই পরিবারের সদস্য।

আজ সোমবার (৮ আগস্ট) সকাল সাড়ে ১০টার দিকে জেলা ও দায়রা জজ আদালতের প্রাঙ্গণে হামলার ঘটনাটি ঘটে।

পূর্ব শত্রুতার জের ধরে আইনজীবী সৈয়দ ফখরুল আলম নাহিদসহ তার ৮-১০ জন সহকর্মী তাদের ওপর হামলা করেছেন বলে অভিযোগ ভুক্তভোগীদের।

আহতরা হলেন- মোহাম্মদ উল্লাহ (৬০), তার স্ত্রী আফরোজা বেগম (৫০), মেয়ে মাহিয়া আক্তার (২২) ও ছেলে আব্বাস হোসেন (২৮)। তারা রামগতি উপজেলার পশ্চিম চর কলাকোপা গ্রামের বাসিন্দা।

তারা জানান, আইনজীবী নাহিদদের সঙ্গে তাদের জমি সংক্রান্ত বিরোধ রয়েছে। নাহিদদের একটি মামলায় তারা আদালতে হাজিরা দিতে এসেছিলেন। হামলার ঘটনাটি পূর্বপরিকল্পিত। মারধরের ঘটনার পর কোর্ট পুলিশ তাদের উদ্ধার করে এজলাসে নিয়ে যান।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বিচার চাইতে আসা কয়েকজনের ওপর আইনজীবীরা হামলা চালিয়েছে। এ ঘটনার বিচার দাবি করেছেন তারা। আইনের লোক হয়ে এমন ন্যক্কারজনক ঘটনা যদি তারাই ঘটান- মানুষ বিচার চাইবে কার কাছে প্রশ্ন করেন প্রত্যক্ষদর্শীরা।

স্থানীয় কয়েকজন সাংবাদিক জানিয়েছেন, ঘটনার ভিডিও করতে গেলে তাদের ওপর ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠেন আইনজীবী আরীফুন নবী চৌধুরী রাসেল। তিনি নাহিদের সহকর্মী।

মারধরের ঘটনায় জড়িত আইনজীবী নাহিদ জেলা কৃষকদলের সাবেক সদস্য সচিব ও বিএনপির চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা সৈয়দ মোহাম্মদ শামছুল আলমের ছেলে। আরীফুন নবী চৌধুরী জেলা বঙ্গবন্ধু আওয়ামী আইনজীবী পরিষদের সদস্য বলে জানা গেছে।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে আইনজীবী ফখরুল আলম নাহিদ বলেন, আমি কিছুই জানি না। কে কার ওপর হামলা করেছে তাও আমার জানা নেই।

এদিকে লক্ষ্মীপুর আইনজীবী সমিতির সভাপতি নুরুল হুদা পাটওয়ারী বলেন, বিষয়টি আমার জানা নেই। খোঁজ নিচ্ছি। ঘটনা প্রমাণ হলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

জানা গেছে, গত ১১ জুন সন্ধ্যায় চর কলাকোপা গ্রামে জমি সংক্রান্ত বিরোধের সালিসি বৈঠকে প্রতিপক্ষের লোকজন আইনজীবী নাহিদকে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে আহত করে। পরে ওই ঘটনায় তিনি মামলা দায়ের করেন। সেই মামলা আদালতে হাজিরা দিতে এসেছিলেন এ চার আসামি।